বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ওই ছাত্রী প্রথম আলোকে বলেন, তিনি শাটল ট্রেনের যে বগিতে ছিলেন, সেখানে দুই যুবক বসে ছিলেন। বগিতে কোনো বাতি ছিল না। তিনি এক পাশের একটা সিটে বসেছিলেন। ট্রেনটি ফতেয়াবাদ এলাকা পার হলে দুই যুবক এসে প্রথমে তাঁর মুখ চেপে ধরেন। পরে তাঁরা তাঁকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন।

অভিযোগকারী ছাত্রী বলেন, ধর্ষণচেষ্টাকালে দুই যুবকের সঙ্গে তাঁর ধস্তাধস্তি হয়। একপর্যায়ে তিনি কোনোরকমে তাঁর মুখ থেকে তাঁদের হাত সরিয়ে চিৎকার করতে সক্ষম হন। তারপরই দুই যুবক চলন্ত ট্রেনের ওই বগি থেকে বেরিয়ে ছাদে উঠে অন্য বগিতে চলে যান। দুই যুবকের পোশাক-আশাক ও কথা শুনে তাঁর মনে হয়েছে, তাঁরা চবির শিক্ষার্থী নন।

ওই ছাত্রী বলেন, তাঁর মুখমণ্ডলের বেশ কয়েক জায়গায় নখের আঁচড় লেগেছে। বগিতে অন্ধকার থাকায় তিনি দুই যুবকের চেহারা ভালোভাবে দেখতে পাননি। ভীত-সন্ত্রস্ত থাকায় তিনি গতকাল এ ঘটনা কাউকে জানাতে পারেননি। তবে আজ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর শহিদুল ইসলামকে তিনি বিষয়টি জানান।

জানতে চাইলে ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর শহিদুল ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, এটি ভয়ংকর ঘটনা। ঘটনার সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিদের খুঁজে বের করতে ইতিমধ্যে পুলিশকে বলা হয়েছে। তাঁরা নিজেরাও অভিযান চালাবেন।

অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন