default-image

সুনামগঞ্জের ছাতক উপজেলায় পাচারকালে সরকারের খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির পাঁচ মেট্রিক টন চালসহ এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছেন পুলিশ ও উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা। গতকাল শুক্রবার রাত ১১টার দিকে চালভর্তি একটি পিকআপ ভ্যানসহ তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তার ব্যক্তির নাম গিয়াস উদ্দিন। তিনি উপজেলার চরমহলা ইউনিয়নের টেটিরচর গ্রামের বাসিন্দা।

পুলিশ ও প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, উপজেলার চরমহল্লা ইউনিয়নের টেটিরচর বাজারে সরকারের খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির চাল বস্তা পরিবর্তন করে পাচারের চেষ্টা করছিলেন ডিলারের লোকজন। খবর পেয়ে রাত ১১টার দিকে সেখানে পুলিশ নিয়ে অভিযান চালান ইউএনও মো. গোলাম কবির। এ সময় একটি পিকআপ ভ্যান ও দোকান থেকে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির চাল জব্দ করা হয়। কিছু চাল পিকআপ ভ্যানে এবং বাকি চাল গিয়াস উদ্দিনের দোকানে ছিল। খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির চালের ৯৯টি খালি বস্তাও জব্দ করা হয়। সব চাল সরকারের ১০ টাকা কেজি ধরে বিক্রির খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির।

ইউএনও গোলাম কবির বলেন, এই চাল বস্তা পরিবর্তন করে অন্যত্র পাচারের চেষ্টা চলছিল। ব্যবসায়ী শামসুদ্দিনের দোকান থেকে বস্তা পরিবর্তন করে একটি পিক আপ ভ্যানে করে চাল নেওয়ার সময় তাঁর ভাই আরেক ব্যবসায়ী গিয়াস উদ্দিনকে আটক করা হয়। মূল ডিলার হলেন ফয়জুল করিম। তিনি আর্থিকভাবে সচ্ছল থাকায় তাঁর লাইসেন্স দিয়ে ব্যবসা করছিলেন শামসুদ্দিন ও গিয়াস উদ্দিন। অভিযানের সময় শামসুদ্দিন পালিয়ে যান। জব্দ চাল ও আটক ব্যক্তিকে থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ঘটনায় উপজেলা খাদ্য গুদাম কর্মকর্তা বাদী হয়ে থানায় মামলা করেছেন।

থানায় মামলা করার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ছাতক থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মোস্তফা কামাল।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0