ফেসবুকে ছাত্রলীগকে নিয়ে উসকানিমূলক বক্তব্য দেওয়ায় ছাত্রদলের এক কর্মীকে ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা বেধড়ক পিটিয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল রোববার বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে।
প্রত্যক্ষদর্শী ও বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মচারী সূত্রে জানা গেছে, বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক সোহরাব হোসেন তাঁর ফেসবুকে ছাত্রলীগকে উদ্দেশ করে উসকানিমূলক বক্তব্য দেন। এর জের ধরে গতকাল বেলা তিনটার দিকে ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতা-কর্মী কৃষি প্রকৌশল ও কারিগরি অনুষদের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী মিজানুরকে পিটিয়ে আহত করেন।
মিজানুর ওই সময় ক্লাস করতে অনুষদের ফটক দিয়ে যাচ্ছিলেন। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন কর্মচারী তাঁকে উদ্ধার করে বিশ্ববিদ্যালয় চিকিৎসাকেন্দ্রে নিয়ে যান। সেখানে অবস্থার অবনিত হলে তাঁকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করেন চিকিৎসকেরা। তবে প্রত্যক্ষদর্শীরা ছাত্রলীগের ওই নেতা-কর্মীদের কারও নাম বলতে পারেননি।
ছাত্রলীগই এ ঘটনা ঘটিয়েছে—এ দাবি করে সোহরাব হোসেন বলেন, ‘রাজনৈতিকভাবে ছাত্রদলের প্রতি তাদের (ছাত্রলীগ)
আক্রোশ থাকতেই পারে। কিন্তু ক্লাস করতে যাওয়ার সময় একজন শিক্ষার্থীকে মারধর করার এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাই ও এর বিচার চাই।’
তবে অভিযোগ অস্বীকার করে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি মুর্শেদুজ্জামান খান প্রথম আলোকে জানান, তাঁরা ওই ছাত্রকে মারধর করেননি। তবে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কটূক্তি করায় মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষের কোনো শক্তির কেউ তাঁকে মারধর করতে পারেন।
এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর হারুন-অর-রশিদ বলেন, ‘আমি ঘটনাটি জেনে ওই ছেলেকে হাসপাতালে পাঠানোর ব্যবস্থা করি। এ বিষয়ে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

বিজ্ঞাপন
অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন