চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে আজ রোববার সকাল সাড়ে ছয়টার দিকে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের মধ্যে গুলিবিনিময় ও ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এতে দুজন আহত হন। ঘটনার কয়েক ঘণ্টা পর ক্যাম্পাসের মূল ফটকে তালা লাগিয়ে দিয়েছে এক পক্ষ। এ নিয়ে ক্যাম্পাসে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

ছাত্রলীগের বিবদমান দুটি পক্ষের একটি হলো ‘ভিএক্স’ (ভার্সিটি এক্সপ্রেস)। আর ‘সিএফসি’ (চুজ ফ্রেন্ডস উইথ কেয়ার) ও ‘ক্যাম্পাস ছাত্রলীগ’ মিলে আরেক পক্ষ।

ক্যাম্পাস সূত্র জানায়, দীর্ঘ দিন বাইরে থাকার পর আজ সকালে ‘ভিএক্স’ পক্ষ ক্যাম্পাসে প্রবেশ করে। খবর পেয়ে প্রতিপক্ষ গ্রুপও পাল্টা অবস্থান নেয়। এ সময় দুই পক্ষের মধ্যে গুলিবিনিময় ও পাল্টাপাল্টি ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। পরে পুলিশ গিয়ে কাঁদানে গ্যাসের শেল ছুড়ে উভয় পক্ষকে সরিয়ে দেয়।

প্রত্যক্ষদর্শীদের ভাষ্য, এ ঘটনায় দুজন আহত হয়েছেন। তবে তাঁদের নাম-পরিচয় প্রাথমিকভাবে জানা যায়নি।

ঘটনার পর থেকে ক্যাম্পাসে থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। সকাল সোয়া নয়টার দিকে ‘সিএফসি’ ও ‘ক্যাম্পাস ছাত্রলীগ’ পক্ষ ক্যাম্পাসের মূল ফটকে তালা লাগিয়ে দেয়।

হাটহাজারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ইসমাইল বলেন, ‘ছাত্রদের দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। আমরা তাঁদের শান্ত করার চেষ্টা করছি।’

বিজ্ঞাপন
অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন