পটুয়াখালীর বাউফল পৌরসভা শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. সাইফুল ইসলাম (২৭) ও ছাত্রলীগের তিন কর্মীকে গত মঙ্গলবার বেদম মারধর করা হয়েছে। এতে সাইফুলের ডান হাত ভেঙে গেছে। এ ঘটনায় গতকাল বুধবার ছাত্রলীগের কর্মী মাহামুদ হাসানসহ (২৮) নয়জনের নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাতনামা ২৫-৩০ জনের নামে একটি মামলা হয়েছে।
এজাহার ও স্থানীয় সূত্রের বিবরণ অনুযায়ী, মঙ্গলবার বিকেলে ছোট ভাই অলিউল্লাকে নিয়ে বগা এলাকায় বোনের বাড়িতে যান সাইফুল ইসলাম। পরে ওই এলাকার খলিল কাজীর বাড়ির সামনে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল মোতালেব হাওলাদারের ছেলে ছাত্রলীগের কর্মী মাহামুদ হাসানের নেতৃত্বে ২০-২৫ জনের একটি দল পথরোধ করে দুই ভাইয়ের ওপর হামলা চালায়। ওই সময় লোহার পাইপ দিয়ে পিটিয়ে জখম করা হয় সাইফুলকে। ছিনিয়ে নেওয়া হয় তাঁর মোটরসাইকেল ও ২০ হাজার টাকা। খবর পেয়ে সাইফুলকে উদ্ধার করতে এগিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন ছাত্রলীগের কর্মী পাভেল, আমিন খান ও লিন্টু খান। বিকেল পাঁচটার দিকে বগা বন্দর নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির সামনে পৌঁছালে তাঁদেরও পিটিয়ে জখম করে হাসান বাহিনী।
স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসা কর্মকর্তা আখতার উজ্জামান বলেন, সাইফুলের ডান হাত ও বাঁ হাতের একটি আঙুল ভেঙে গেছে। অন্যদের শরীরেও জখম রয়েছে।
জানতে চাইলে মাহামুদ হাসান বলেন, মারামারির ঘটনায় তিনি ও তাঁর লোকজন জড়িত না।

বিজ্ঞাপন
অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন