উত্তরা এপিবিএনের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জিয়াউল হক প্রথম আলোকে বলেন, কনস্টেবল ভরত কুমার ও কামরুলের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির সুনির্দিষ্ট অভিযোগ তদন্ত করে প্রাথমিক সত্যতা পাওয়া গেছে। এরপর তাঁদের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা হয়েছে। আর ভুক্তভোগী ব্যক্তিকে আইনি সহায়তা দেওয়া হয়েছে।

মামলার কাগজপত্র এবং ভুক্তভোগীর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, জামালপুরের মাদারগঞ্জ কলেজের ছাত্র কাউসার আহমেদ ২২ জুন রাজধানীর হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে আসেন। সেদিন বিকেলে তাঁর চাচাতো ভাইয়ের সৌদি আরব থেকে ঢাকার বিমানবন্দরে নামার কথা ছিল। কাউসার বিমানবন্দর বহুতল কার পার্কিংয়ের তৃতীয় তলায় প্রাইভেট কারের ভেতর বসে ছিলেন। বিকেল সাড়ে চারটার দিকে এপিবিএনের কনস্টেবল ভরত কুমার ও কামরুল সেখানে আসেন। তাঁরা গাড়ির ভেতর বসে থাকা কাউসার ও চালক উজ্জ্বলকে গাড়ি থেকে নামতে বলেন। এরপর তাঁরা গাড়ি এবং কাউসার ও উজ্জ্বলের দেহ তল্লাশি করেন।

কাউসার প্রথম আলোকে বলেন, ‘আমাদের দেহ তল্লাশি করার পর কোনো কিছু পুলিশের দুই সদস্য পাননি। তবে গাড়ির নিচে পড়ে থাকা সিগারেটের কাগজ দেখিয়ে ভরত কুমার বলেন, “চল, তোকে থানায় নিয়ে যাব।” তখন আমি বলি, আমার কাছে অবৈধ কিছু নেই। আমি একজন ছাত্র মানুষ। আমি চাচাতো ভাইকে রিসিভ করার জন্য এখানে এসেছি। আমার জীবনটা শেষ করবেন না।’

কাউসার আরও বলেন, ভরত কুমার রায় তখন এক লাখ টাকা চাঁদা চান। এই টাকা না দিলে মাদক মামলার আসামি করার হুমকি দেন।

মামলার এজাহারে কাউসার অভিযোগ করেন, তিন হাজার টাকা তিনি ভরত কুমারকে দিতে রাজি হন। তবে এই টাকা নিতে রাজি হননি তিনি। পরে তাঁর চাচাতো ভাইয়ের কাছ থেকে ১৫ হাজার টাকা জোগাড় করে ভরত কুমারকে দেন। তখন ভরত কুমার টাকার পাশাপাশি কাউসারের দামি মুঠোফোনটি কেড়ে নিয়ে চলে যান। পরে তিনি বিমানবন্দর এপিবিএনের কর্মরত ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ করেন।

এপিবিএনের এসআই ওসমান গণি জানান, রাত ১১টার দিকে অভিযান চালিয়ে কনস্টেবল ভরত কুমার ও কামরুলকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। ভরত কুমারের কাছ থেকে চাঁদাবাজির চার হাজার টাকা ও ভুক্তভোগীর মুঠোফোন জব্দ করা হয়। পাশাপাশি কামরুলের কাছ থেকেও চাঁদাবাজির সাড়ে তিন হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়।


বিমানবন্দর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মুহা. আসলাম উদ্দিন প্রথম আলোকে বলেন, কনস্টেবল ভরত কুমার ও কামরুলের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির ঘটনা তদন্ত করে আদালতে প্রতিবেদন জমা দেওয়া হবে।

অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন