চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড উপজেলার বাড়বকুণ্ড ইউনিয়নের নডালিয়া গ্রামে জমিজমা নিয়ে বিরোধের জের ধরে দুপক্ষের সংঘর্ষে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। আজ শনিবার দুপুর ১২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় উভয় পক্ষের ছয়জন আহত হয়েছেন। পুলিশ তিনজনকে আটক করেছে।

নিহত ব্যক্তির নাম নুরুল হুদা (৫৫)। তিনি পেশায় কৃষক। তাঁর বাড়ি নডালিয়া গ্রামে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, নডালিয়া গ্রামের বেড়িবাঁধ এলাকার একটি জমি একই গ্রামের বাসিন্দা নুরুল হুদার পরিবারের সঙ্গে নুর সোলায়মানের পরিবারের মধ্যে দীর্ঘ দিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। আজ বেলা ১১টার দিকে নুরুল হুদা তাঁর পরিবারের লোকজন নিয়ে ওই জমিতে ধান রোপন করতে যান। এ সময় নুর সোলায়মানের পরিবারের লোকজন তাঁদের বাধা দেয়। এতে দুপক্ষের মধ্যে কথা-কাটাকাটির একপর্যায়ে সংঘর্ষ বেধে যায়। সংঘর্ষে নুরুল হুদা, তাঁর ভাই নুরুল আলম (৫০) ও সেকেন্দার হোসাইন (২৫), ভাতিজা মহিউদ্দীন (২৮) এবং নুরুল হুদার নাতনী আয়েশা খাতুন (৮) আহত হন। অন্য দিকে নুর সোলায়মানের পক্ষের জান মোহাম্মদ (৩২) ও আহাদ হোসেন (২২) আহত হন। তাঁদের প্রথমে সীতাকুণ্ড স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পরে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক নুরুল হুদাকে মৃত ঘোষণা করেন। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনা স্থলে গেলে নুর সোলায়মানের পরিবারের লোকজন পালিয়ে যায়।

সীতাকুণ্ড মডেল থানার সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) সাইফুল ইসলাম বলেন, নুর সোলায়মানদের পরিবারের হামলায় নুরুল হুদা নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় তিনজনকে আটক করা হয়েছে। অন্যরা পলাতক রয়েছে। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0