জয়পুরহাট শহরের আরাফাত নগরে বাবার বাড়িতে গতকাল মঙ্গলবার খুন হয়েছেন সদ্যবিবাহিত সেমি আক্তার (২০) নামের এক গৃহবধূ। স্বামী লিটন হোসেন মাথায় আঘাত করে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে শ্বাসরোধে হত্যা করে পালিয়ে গেছেন বলে পরিবারের অভিযোগ। পুলিশ সেমি আক্তারের মরদেহ উদ্ধার করে জয়পুরহাট জেলা হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে।
পারিবারিক সূত্র জানায়, রফিকুল ইসলামের মেয়ে সেমি আক্তারের সঙ্গে গত কোরবানি ঈদের আগে পাঁচবিবি উপজেলার বুধইল গ্রামের লিটন হোসেনের বিয়ে হয়। বিয়ের পর লিটন স্ত্রীকে নিয়ে তাঁর বুধইল গ্রামে সংসার শুরু করেন। সেখানে লিটনের বাবা-মায়ের সঙ্গে বনিবনা না হওয়ায় রাগ করে স্ত্রী সেমিকে নিয়ে শ্বশুর রফিকুল ইসলামের বাড়ি আরাফাতনগরে ওঠেন। প্রায় দুই মাস ধরে লিটন স্ত্রীকে নিয়ে শ্বশুরবাড়িতেই বসবাস করছিলেন।
গতকাল জামাই ও মেয়েকে বাড়িতে রেখে রফিকুল ও তাঁর স্ত্রী আফিয়া বেগম সাংসারিক কাজে বাইরে যান। বেলা দেড়টার দিকে সেমির মা আফিয়া বেগম বাড়িতে এসে ঘরের মধ্যে দেখেন মেয়ে গলায় ওড়না পেঁচানো ও মুখ দিয়ে রক্ত পড়া অবস্থায় বিছানায় পড়ে আছেন। প্রতিবেশী রেজু হোসেন জানান, সেমির মায়ের আর্তচিৎকারে তিনি তাদের বাড়িতে ঢুকে দেখেন সেমির গলায় ওড়না পেঁচানো অবস্থায় মুখ দিয়ে তখনো রক্ত ঝরছে। ঘটনার পর থেকে লিটন পলাতক আছেন।

বিজ্ঞাপন
অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন