default-image

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের দক্ষিণ ক্যাম্পাসের এক কটেজের মালিকের বিরুদ্ধে বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রীকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে। ওই ছাত্রী আজ সোমবার সন্ধ্যায় মারধরের ঘটনায় হাটহাজারী থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন।

ঘটনার বর্ণনা দিয়ে ওই ছাত্রী প্রথম আলোকে বলেন, তিনি ছয় মাস দক্ষিণ ক্যাম্পাসের নিরিবিলি হাউস নামের ওই কটেজে ভাড়া থেকেছেন। গত ডিসেম্বরে তিনি বাসা পরিবর্তন করে অন্য জায়গায় চলে যান। তবে সে সময় জামানতে থাকা দুই হাজার টাকা ফেরত দেননি বাড়ির মালিক। আজ সোমবার দুপুরে ওই ছাত্রী পাওনা টাকা চাইতে গেলে কটেজের মালিক নুরুল ইসলাম টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানান। এ সময় অকথ্য ভাষায় গালাগালও করেন। প্রতিবাদ করায় ছাত্রীর চুলের মুঠি ধরে মারধর করেন। সঙ্গে ডান হাতে কামড় ও থাপ্পড় দেন। 


ওই ছাত্রী আরও বলেন, ‘নুরুল ইসলাম আমার গলা চেপে ধরে মারধর করেন। পরে চিৎকার করলে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসে। এরপর বন্ধুরা এসে আমাকে বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসাকেন্দ্রে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় থানায় জিডি করেছি। আমি এর সুষ্ঠু বিচার চাই।’ অভিযোগের বিষয়ে জানতে কটেজের মালিক নুরুল ইসলামের সঙ্গে বেশ কয়েকবার চেষ্টা করেও যোগাযোগ করা যায়নি।

ছাত্রীকে মারধরের বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর এস এম মনিরুল হাসান প্রথম আলোকে বলেন, ঘটনা জানার পর নুরুল ইসলামকে ডেকে আনা হয়। প্রাথমিকভাবে তিনি মারধরের বিষয়টি স্বীকার করেন। পাশাপাশি ওই ছাত্রী থানায় অভিযোগ করেছেন। এখন আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ওই ছাত্রীর পাশে আছে।

হাটহাজারী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. আবুল বাশার প্রথম আলোকে বলেন, অভিযোগ পাওয়া গেছে। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0