জামালপুরে এক ব্যক্তিকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

বিজ্ঞাপন

জামালপুর সদর উপজেলায় মসজিদ কমিটির দ্বন্দ্বের জের ধরে মুক্তার হোসেন (৩২) নামের এক ব্যক্তিকে পিটিয়ে ও শাবল দিয়ে আঘাত করে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। আজ সোমবার সন্ধ্যার দিকে উপজেলার শরিফপুর ইউনিয়নের কপালীপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

মুক্তার হোসেন কপালীপাড়া গ্রামের মো. ফরহাদ আলীর ছেলে। তিনি জামালপুর শহরে একটি ওষুধের দোকানের কর্মচারী ছিলেন।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, কপালীপাড়া জামে মসজিদ পরিচালনায় নতুন কমিটি গঠনের দাবি উঠলেও কমিটির বর্তমান সভাপতি আবদুল মজিদ আকন্দ সময়ক্ষেপণ করছিলেন। এ নিয়ে স্থানীয় দুই পক্ষের মধ্যে বেশ কয়েক দিন ধরে উত্তপ্ত পরিস্থিতি বিরাজ করছিল। আজ সোমবার বিকেলের দিকে এ নিয়ে গ্রামের দুই পক্ষের মধ্যে ঝগড়া বাধে। একপর্যায়ে প্রতিপক্ষের লোকজন মুক্তার হোসেনকে পিটিয়ে ও শাবল দিয়ে আঘাত করলে ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান। খবর পেয়ে জামালপুর সদর থানা-পুলিশ মুক্তার হোসেনের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য জামালপুর জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠায়। এ ঘটনায় গ্রামে উত্তেজনা বিরাজ করছে। সংঘর্ষ এড়াতে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

এ ঘটনায় প্রতিপক্ষের কারও বক্তব্য পাওয়া যায়নি। ঘটনার পর থেকে সবাই পলাতক।

জামালপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সালেমুজ্জামান বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, মসজিদ কমিটি গঠন নিয়ে দ্বন্দ্বের জের ধরেই এই হত্যাকাণ্ড ঘটেছে। নিহত ব্যক্তির পরিবারের পক্ষ থেকে এখনো থানায় অভিযোগ দেওয়া হয়নি। অভিযোগ পেলে মামলা হবে। হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত লোকজনকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন