পিটিয়ে ও পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় জেলা প্রশাসনের তদন্ত কমিটি আজ বৃহস্পতিবার লালমনিরহাটের জেলা প্রশাসক মো. আবু জাফরের হাতে তদন্ত প্রতিবেদন হস্তান্তর করে
পিটিয়ে ও পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় জেলা প্রশাসনের তদন্ত কমিটি আজ বৃহস্পতিবার লালমনিরহাটের জেলা প্রশাসক মো. আবু জাফরের হাতে তদন্ত প্রতিবেদন হস্তান্তর করেপ্রথম আলো

লালমনিরহাটের পাটগ্রামের বুড়িমারীতে গত ২৯ অক্টোবর আবু ইউনুস মোহাম্মদ শহীদুন্নবী জুয়েলকে পিটিয়ে ও পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় জেলা প্রশাসনের তদন্ত কমিটি প্রতিবেদন জমা দিয়েছে। তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি পবিত্র কোরআন অবমাননার প্রমাণ পায়নি বলে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় লালমনিরহাটের জেলা প্রশাসক মো. আবু জাফরের হাতে আনুষ্ঠানিকভাবে তদন্ত প্রতিবেদন হস্তান্তর করেন তদন্ত কমিটির প্রধান লালমনিরহাটের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট টি এম এ মমিন। এ সময় তদন্ত কমিটির অপর দুই সদস্য লালমনিরহাটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রবিউল ইসলাম এবং লালমনিরহাট জেলা ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের উপসহকারী পরিচালক সাহিদুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।

লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, গত ৩০ অক্টোবর গঠিত তিন সদস্যের তদন্ত কমিটিকে প্রথমে তিন কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিলের সময়সীমা বেঁধে দেওয়া হয়। পরে আরও দুই দফায় সময় বাড়িয়ে নয় কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিল করার সময় নির্ধারিত হয়।

বিজ্ঞাপন

গতকাল বুধবার পূর্বনির্ধারিত সময় অনুযায়ী তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করার কথা থাকলেও তা হয়নি। তদন্ত কমিটির প্রধান লালমনিরহাটের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট টি এম এ মমিন তদন্ত প্রতিবেদনের বিষয়ে বিস্তারিত বলতে রাজি হননি। তবে তিনি বলেন, পবিত্র কোরআন অবমাননার কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি। তদন্ত কমিটি লিখিত ও মৌখিকভাবে প্রকাশ্যে ও গোপনে ৫০ জনের সাক্ষ্য নিয়েছে।

তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন গ্রহণের পর লালমনিরহাটের জেলা প্রশাসক মো. আবু জাফর তাঁর কার্যালয়ে উপস্থিত সাংবাদিকদের বলেন, তদন্ত প্রতিবেদনে পবিত্র কোরআন অবমাননার সত্যতা পাওয়া যায়নি বলে উল্লেখ রয়েছে। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আমরা তদন্ত প্রতিবেদনটি জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়সহ সরকারের সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ে পাঠাব।’

পবিত্র কোরআন অবমাননার অভিযোগ তুলে শহীদুন্নবীকে পিটিয়ে ও পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় তিনটি পৃথক মামলা হয়েছে। পুলিশ এখন পর্যন্ত ৩২ জনকে গ্রেপ্তার করেছে। ১০ জনকে রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে তিনজন আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

মন্তব্য পড়ুন 0