টেকনাফে রোহিঙ্গা শিবিরে 'গোলাগুলিতে' নিহত ১

বিজ্ঞাপন

কক্সবাজারের টেকনাফে রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরে সন্দেহভাজন দুই দল ডাকাতের মধ্যে ‘গোলাগুলিতে’ একজন নিহত হয়েছেন। দুজন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন।

শনিবার রাত সাড়ে নয়টার দিকে উপজেলার হ্নীলা ইউনিয়নের নয়াপাড়া রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরে এ ঘটনা ঘটে। প্রথম আলোকে এই তথ্য জানিয়েছেন নয়াপাড়া রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরের পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ উপপরিদর্শক (এসআই) মোহাম্মদ বাবুল।

নিহত ব্যক্তির নাম-পরিচয় তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি। গুলিবিদ্ধ দুজন হলেন নয়াপাড়া রোহিঙ্গা শিবিরের এইচ ব্লকের ৬৭৭/১-এর বাসিন্দা মো. সামসুল আলম (২৯) ও নয়াপাড়া মোছনি শিবিরের এইচ ব্লকের ৬২৭/৮-এর বাসিন্দা মোহাম্মদ রাসেল ওরফে ফয়সাল (১৩)।

এসআই মোহাম্মদ বাবুল বলেন, আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে গত রাতে নয়াপাড়া শরণার্থী শিবিরে দুই দল ডাকাতের মধ্যে গোলাগুলি হয়। পরে একজন অজ্ঞাত ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করা হয়। তাঁর নাম-পরিচয় এখনো জানা যায়নি। এ ঘটনায় গুলিবিদ্ধ অবস্থায় সামসুল আলম ও মোহাম্মদ রাসেল ওরফে ফয়সাল নামের দুজনকে উদ্ধার করা হয়েছে। তাঁদের আশঙ্কাজনক অবস্থায় কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

নয়াপাড়া রোহিঙ্গা শিবিরের মাঝি মোস্তফা কামাল বলেন, দুই দল ডাকাতের মধ্যে গোলাগুলিতে হতাহতের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনার পর রোহিঙ্গাদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

স্থানীয় রোহিঙ্গাদের ভাষ্য, রোহিঙ্গা ডাকাত মো. জকির ও শীর্ষ ডাকাত নুরুল আলমের সহযোগীদের মধ্যে এই গোলাগুলি হয়েছে। নিহত ব্যক্তি ডাকাত দলের সদস্য হতে পারেন।

টেকনাফ মডেল থানা-পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশন) রাকিবুল ইসলাম বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। আহত ব্যক্তিদের উদ্ধার করে উন্নত চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ কক্সবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন