টেকনাফে র্যাবের সঙ্গে 'গোলাগুলিতে' রোহিঙ্গা ডাকাত নিহত

বিজ্ঞাপন
default-image

কক্সবাজারের টেকনাফে র‌্যাবের সঙ্গে ‘গোলাগুলিতে’ মোহাম্মদ রশিদ উল্লাহ (২৮) নামের একজন রোহিঙ্গা ডাকাত নিহত হয়েছেন। রশিদ উল্লাহ টেকনাফ উপজেলার হ্নীলা ইউনিয়নের লেদা রোহিঙ্গা শরণার্থীশিবিরের বাসিন্দা শফিক উল্লাহর ছেলে।

র‌্যাবের ভাষ্যমতে, নিহত ব্যক্তি একজন রোহিঙ্গা ডাকাত। তাঁর বিরুদ্ধে হত্যা, ডাকাতি, অস্ত্রসহ ১১টি মামলা রয়েছে। তিনি রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী গ্রুপ খালেক গ্রুপের সক্রিয় সদস্য ছিলেন। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ১৮ নম্বর তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসী ও রোহিঙ্গা ডাকাত দলের সক্রিয় সদস্য। এ ঘটনায় র‌্যাবের দুজন সদস্য আহত হয়েছেন।

গতকাল মঙ্গলবার দিবাগত রাত দুইটার দিকে টেকনাফের হ্নীলার দমদমিয়া জাহাজঘাট পাহাড়ি এলাকায় এ গোলাগুলির ঘটনা ঘটে।


ঘটনাস্থল থেকে দুটি দেশীয় আগ্নেয়াঅস্ত্র (এলজি) ও পাঁচটি গুলি উদ্ধার করা হয়েছে। এ তথ্যটি প্রথম আলোকে নিশ্চিত করেছেন র‌্যাব-১৫ কক্সবাজার ব্যাটলিয়নের অধিনায়ক উইং কমান্ডার আজিম আহমেদ।

র‌্যাবের অধিনায়ক আজিম আহমেদের ভাষ্যমতে, র‌্যাবের কাছে খবর আসে, দমদমিয়া জাহাজঘাট পাহাড়ি এলাকায় সংঘবদ্ধ একটি ডাকাত দল অবস্থান করছে। এই খবরের সূত্র ধরে টেকনাফ (সিপিসি-১)–এর কর্তব্যরত অপারেশন কমান্ডার (অতিরিক্ত পুলিশ সুপার) বিমান চন্দ্র কর্মকারের নেতৃত্বে র‌্যাবের একটি দল সেখানে অভিযানে যায়। উপস্থিতি টের পেয়ে র‌্যাবের সদস্যদের লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে ডাকাতেরা। আত্মরক্ষার্থে র‌্যাবও পাল্টা গুলি চালায়। গোলাগুলির একপর্যায়ে ডাকাতেরা পিছু হটে পালিয়ে গেলে ঘটনাস্থলে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় একজনকে পাওয়া যায়। উদ্ধার করে দ্রুত টেকনাফ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

অধিনায়ক আরও বলেন, পরে খবর পেয়ে থানা-পুলিশের একটি দল হাসপাতাল থেকে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন