default-image

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) করা মামলায় জামিন প্রশ্নে রুল নিয়ে তথ্য গোপন করে একই মামলায় আবার জামিন চেয়ে ফেঁসে গেছেন বহিষ্কৃত শ্রমিক লীগ নেতা তুফান সরকার।

ওই মামলায় কোনো আদালতে তুফান সরকার আগামী ছয় মাস জামিন আবেদন করতে পারবেন না বলে আদেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ আজ বৃহস্পতিবার এ আদেশ দেন।

ওই মামলায় তুফান সরকারের জামিন প্রশ্নে ইতিপূর্বে দেওয়া রুল খারিজ করে ও দ্বিতীয় দফায় করা জামিন আবেদন সরাসরি খারিজ করে ওই আদেশ দেওয়া হয়। বগুড়ায় কিশোরীকে ধর্ষণ এবং কিশোরী ও তার মাকে নির্যাতনের পর মাথা ন্যাড়া করে দেওয়ার ঘটনায় আলোচিত তুফান সরকার কারাগারে আছেন।

আদালতে তুফানের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী শাহ আলম সরকার। দুদকের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী সাজ্জাদ হোসেন। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মো. সারওয়ার হোসেন।

বিজ্ঞাপন

পরে আইনজীবী সাজ্জাদ হোসেন প্রথম আলোকে বলেন, ওই মামলায় আগে একবার একই বেঞ্চে জামিন চান তুফান সরকার, তখন আদালত শুধু রুল দেন। এই রুল বিষয়টি গোপন করে ওই মামলায় আবার নতুন করে একই বেঞ্চে জামিন আবেদন করেন তুফান। এই তথ্য গোপনের বিষয়টি জেনে তা আদালতের নজরে আনা হয়। শুনানি নিয়ে আদালত ওই আদেশ দেন।

প্রাপ্ত তথ্যমতে, জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে তুফান সরকার ও তাঁর ভাই মতিন সরকারের বিরুদ্ধে ২০১৮ সালের ৩১ ডিসেম্বর দুদক ওই মামলা করে। এর আগে ধর্ষণের ঘটনায় করা মামলায় গ্রেপ্তার হয়ে ২০১৭ সালের ২৯ জুলাই থেকে তিনি কারাগারে আছেন। ওই মামলায় তুফান সরকার হাইকোর্টে জামিন চান, এর শুনানি নিয়ে গত বছরের ৯ সেপ্টেম্বর হাইকোর্ট রুল দেন। রুল বিচারাধীন থাকা অবস্থায় আবার জামিন চেয়ে ১১ মার্চ আরেকটি আবেদন করেন তুফান। বিষয়টি নজরে আনা হলে আবেদন দুটি আজ কার্য তালিকায় ওঠে।

অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন