বিজ্ঞাপন

সর্বশেষ ৯ অক্টোবর বিকেলে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সরাইল উপজেলা থেকে মামলার প্রধান আসামি শামীম আহমদকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এই মামলায় গ্রেপ্তার অন্য পাঁচ আসামি হলেন জগন্নাথপুর উপজেলার লিটন মিয়া (৩০), ইলাক মিয়া (২৫), আকাই হোসেন (২৭), আলম খান (২৮) ও নওগাঁও গ্রামের কাজল মিয়া (৪৫)।

পুলিশ, এলাকাবাসী ও এজাহার সূত্রে জানা গেছে, সাত বছর আগে হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলায় ওই তরুণীর বিয়ে হয়। বিয়ের দুই বছর পর দাম্পত্য বিরোধ দেখা দিলে একমাত্র ছেলেকে (৫) নিয়ে তিনি সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে বাবার বাড়িতে চলে যান। এর পর থেকে বখাটে শামীম ওই তরুণীকে নানাভাবে উত্ত্যক্ত করতে থাকেন। এক মাস আগে জোর করে তরুণীকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যান শামীম। কিছুদিন আটকে রেখে তাঁকে ধর্ষণ করেন। শামীমের হাত থেকে বাঁচতে মেয়েটি নবীগঞ্জ উপজেলার একটি বাড়িতে গৃহপরিচারিকার কাজ নিয়ে বাবার বাড়ি থেকে চলে যান। ৫ অক্টোবর রাত ১২টার দিকে বখাটে শামীম তাঁর লোকজনকে নিয়ে তাঁর বাবার বাড়িতে যান এবং তাঁকে না পেয়ে বৃদ্ধ বাবাকে রড দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর জখম করেন।

অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন