রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলা মৎস্য সম্প্রসারণ কর্মকর্তা নিজ কর্মস্থল উপজেলা মৎস্য দপ্তরে কাজ করেন না। মাসে শুধু একবার বেতন তুলতে আসেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। কর্মস্থলে যোগদানের পর প্রায় দেড় বছর ধরেই তিনি এভাবে কাজ করছেন বলে জানা যায়।
উপজেলা মৎস্য কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, এখানে মোট পদের সংখ্যা ছয়টি। গত বছরের ৭ আগস্ট সহকারী মৎস্য কর্মকর্তা অন্যত্র বদলি হওয়ার পর থেকে ওই পদটি শূন্য। এ ছাড়া মৎস্য কর্মকর্তা, মৎস্য সম্প্রসারণ কর্মকর্তাসহ অন্যান্য পদ পূরণ আছে। মৎস্য সম্প্রসারণ কর্মকর্তা হিসেবে শামিমা আক্তার ২০১৩ সালের ১৩ আগস্ট যোগদান করেন। কিন্তু তিনি কোনো দিন দপ্তরে বসেননি। নিজ কার্যালয়ে না এসে তিনি জেলা কার্যালয়ে কাজ করেন।
সরেজমিনে দেখা যায়, গত বুধবার দুপুরে উজানচর থেকে আসা এক কলেজছাত্র কিছু গুরুত্বপূর্ণ কাগজ সত্যায়িত করতে উপজেলা মৎস্য দপ্তরে এসে ফিরে যান। ওই ছাত্র বলেন, ‘মৎস্য কর্মকর্তা রাজবাড়ীতে ট্রেনিংয়ে আছেন। শুনেছি, সম্প্রসারণ কর্মকর্তার পদ আছে, কিন্তু তাঁর খোঁজ পাচ্ছি না।’এ প্রতিবেদক খোঁজ নিতে কার্যালয়ে গেলে উপস্থিত মাঠসহকারী কৃষ্ণ লাল দাস ও অফিস সহকারী রিয়াজুল হক জানান, মৎস্য সম্প্রসারণ কর্মকর্তা কার্যালয়ে আসেননি। গত রোববার তিনি এসেছিলেন বেতন তুলতে। বেতন তুলেই চলে গেছেন।
উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা শিলা রায় বলেন, তিনজন কর্মকর্তার মধ্যে একটি পদ দীর্ঘদিন ধরে শূন্য। মৎস্য সম্প্রসারণ কর্মকর্তা নিয়মিত কার্যালয়ে না আসায় দপ্তরের সব কাজ একা সামাল দিতে অনেক বেগ পোহাতে হয়।
মৎস্য সম্প্রসারণ কর্মকর্তা শামিমা আক্তার মুঠোফোনে বলেন, ‘আমি ঢাকায় ডিজি অফিসের অনুমতি নিয়ে জেলা কার্যালয়ে অফিস করি। তা ছাড়া আমার বাচ্চা ছোট, এ কারণে সময় দিতে সমস্যা হয়। তার পরও সপ্তাহে অন্তত একদিন গোয়ালন্দে অফিস করার চেষ্টা করি। বিষয়টি জেলা মৎস্য কর্মকর্তাকে জিজ্ঞাসা করলে ভালো জানতে পারবেন।’
জেলা মৎস্য কর্মকর্তা রতন দত্ত বলেন, জেলা মৎস্য কর্মকর্তার নিচে কোনো কর্মকর্তা না থাকায় দপ্তরের অনেক কাজ তাঁকে দিয়ে মাঝেমধ্যে করানো হয়। একজন কর্মকর্তাকে কর্মস্থলে অনুপস্থিত রেখে নিজ দপ্তরে কাজ করানো কতটুকু যুক্তিসংগত, এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি সামনাসামনি কথা হবে জানিয়ে ফোন রেখে দেন।
এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) পঙ্কজ ঘোষ বলেন, একজন সরকারী কর্মকর্তার এভাবে অনুপস্থিত থাকা মোটেও ন্যায়সংগত না। শুধুমাত্র বেতন তুলতে আসাটা দুঃখজনক। বিষয়টি যথাযথ কর্তৃপক্ষকে জানানো হবে।

বিজ্ঞাপন
অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন