default-image

নওগাঁয় দিনে-দুপুরে নিজ বাড়িতে কহিনুর আক্তার (৪৪) নামে এক গৃহবধূ খুন হওয়ার অভিযোগ উঠেছে। আজ বুধবার দুপুর ১২টার দিকে নওগাঁ শহরের পার নওগাঁ ধোপাপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত কহিনুরের স্বামীর নাম ইসরাইল শেখ। শহরের তাজের মোড়ে ইসরাইলের হাড়িপাতিলের দোকান রয়েছে।

নিহতের স্বজন ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, দুপুরে কাজ করতে এসে গৃহকর্মী সীমা আক্তার ঘরের মেঝেতে কহিনুরকে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে। এ সময় কহিনুরের স্বামী ইসরাফিল শেখ বাড়ি ছিলেন না। খবর পেয়ে স্বজনেরা কহিনুরকে উদ্ধার করে নওগাঁ সদর হাসপাতালে নেয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক কহিনুরকে মৃত ঘোষণা করেন।

ইসরাফিল শেখ বলেন, ‘আমি সকাল ৯টার দিকে নিজের দোকানে চলে যাই। দুপুর ১২টার দিকে কাজের মেয়ে সীমার ফোন পেয়ে বাড়ি এসে দেখি, কহিনুর মেঝেতে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে আছে। আলমারির তালা ভাঙা, কে বা কারা সেখানে থাকা নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকার নিয়ে গেছে। আমার ধারণা, ডাকাতি করতে বাধা দেওয়ায় আমার স্ত্রী খুন হয়েছেন।’ তিনি দাবি করেন, স্ত্রীর সঙ্গে তাঁর কোনো পারিবারিক কলহ ছিল না।

নওগাঁ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সোহরাওয়ার্দী হোসেন বলেন, নিহতের মাথায় গভীর আঘাতের চিহ্ন আছে। প্রাথমিকভাবে মনে হচ্ছে, ডাকাতদের বাধা দেওয়ায় ওই গৃহবধূ খুন হয়েছেন। পারিবারিক কলহের জেরেও হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটতে পারে। সব দিক বিবেচনায় রেখে তদন্ত করা হচ্ছে। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য গৃহকর্মী সীমাকে আটক করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন