চট্টগ্রামের রাউজানে দুর্বৃত্তের গুলিতে এক যুবলীগ কর্মীর মৃত্যু হয়েছে। তাঁর নাম শহীদুল আলম (৩৫)। আজ বুধবার বেলা তিনটার দিকে উপজেলার রাউজান-রাঙামাটি সড়কের চারাবটতল এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত শহীদুল ৭ নম্বর রাউজান ইউনিয়ন হরিশখাইন পাড়ার আলী আহাম্মদের ছেলে। পরিবারের অভিযোগ, রাউজানের সন্ত্রাসী আজিজ বাহিনীর প্রধান আজিজের নেতৃত্বে তাঁকে খুন করা হয়েছে।

নিরাপত্তার আশঙ্কায় নাম প্রকাশ না করার শর্তে ঘটনার একজন প্রত্যক্ষদর্শী বলেন, রাঙামাটি সড়কের রাবারবাগান এলাকার দিক থেকে দুটি মাইক্রোবাস জসীমের ওয়ার্কশপের সামনে এসে দাঁড়ায়। মাইক্রোবাস থেকে ১০ থেকে ১২ জন মুখোশধারী যুবক নেমে শহীদুলকে গুলি করে। সবার হাতে অস্ত্র ছিল। ঘটনাস্থলে তাঁর মৃত্যু হয়। মিনিট দুয়েক পর তারা গাড়ি নিয়ে রাউজান সদরের দিকে চলে যায়।

এ প্রসঙ্গে রাউজান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশ বলেন, কারা কী উদ্দেশ্যে শহীদুলকে গুলি করে হত্যা করেছে, প্রাথমিকভাবে তা জানা যায়নি। জড়িত ব্যক্তিদের গ্রেপ্তারে পুলিশের অভিযান চলছে। বন্দুক কিংবা রিভলবার দিয়ে শহীদুলকে গুলি করা হয়েছে বলে ধারণা করছে পুলিশ। ওসি বলেন, তাঁর বিরুদ্ধে হত্যা, মাদক আইনে মামলাসহ বেশ কয়েকটি মামলা রয়েছে। তবে ঠিক কয়টি মামলা, তা এখনই বলা সম্ভব নয়।

নিহত শহীদুলের বড় ভাই নুরুল কবির আজ সন্ধ্যায় প্রথম আলোকে বলেন, দুই মাস আগে আবুধাবি থেকে দেশে আসে শহীদুল। সে যুবলীগের মিছিল, সভায় অংশগ্রহণ করত। তিনি অভিযোগ করে বলেন, আজিজ বাহিনীর প্রধান আজিজ শহীদুলকে চার বছর আগে রাউজান উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জমির উদ্দিন পারভেজকে হত্যা করতে বলেছিল। রাজি না হওয়ায় সেই থেকে আজিজ তাঁর ভাইকে হত্যার পরিকল্পনা করে। আজিজ ও তার সহযোগীদের আসামি করে রাউজান থানায় একটি হত্যা মামলা করবেন বলে নুরুল কবির জানান।

বিজ্ঞাপন
অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন