ছাগলে শিমগাছ খাওয়া নিয়ে কুমিল্লার দেবীদ্বারে শ্যামলা খাতুন (৪৫) নামের এক গৃহবধূর লাথির আঘাতে জাহানারা বেগম (৫০) নামের আরেক গৃহবধূ নিহত হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল শুক্রবার উপজেলার বারেরা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর শ্যামলা খাতুনকে পুলিশ আটক করেছে।
দেবীদ্বার থানার উপপরিদর্শক (এসআই) জাকির হোসেন জানান, গতকাল বেলা ১১টায় পোনরা গ্রামের ভাড়াটে রিকশাচালক শাহজাহান মিয়া ওরফে বগা মিয়ার স্ত্রী জাহানারা বেগমের শিমগাছ খেয়ে ফেলে পার্শ্ববর্তী বারেরা গ্রামের দিনমজুর বজলু মিয়ার স্ত্রী শ্যামলা খাতুনের ছাগল। এ নিয়ে দুই গৃহবধূর মধ্যে কথা-কাটাকাটি, পরে হাতাহাতি ও চুলোচুলি হয়। একপর্যায়ে শ্যামলা খাতুন সজোরে জাহানারা বেগমের পেটে লাথি মারেন। এতে ঘটনাস্থলেই তিনি অচেতন হয়ে পড়েন। পরে গ্রামবাসী তাঁকে উদ্ধার করে দেবীদ্বার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। খবর পেয়ে দেবীদ্বার থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। এরপর লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।
এদিকে ঘটনার পর শ্যামলা খাতুন পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন। পুলিশ কুমিল্লা-ব্রাহ্মণবাড়িয়া আঞ্চলিক মহাসড়কের ভিরাল্লা বাসস্ট্যান্ড এলাকা থেকে তাঁকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

বিজ্ঞাপন
অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন