ধর্ষণের ভিডিও ছড়িয়ে দেওয়ার মামলায় গ্রেপ্তার ২

বিজ্ঞাপন
default-image

রাজশাহীর মোহনপুরে বাক্‌প্রতিবন্ধী এক তরুণীকে ধর্ষণের ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগে করা মামলায় পুলিশ দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে। গতকাল বুধবার রাতে অভিযুক্ত ধর্ষক ও তাঁর সহযোগীকে গ্রেপ্তার করা হয়।

ঘটনার শিকার ওই তরুণীর মা গতকাল বাদী হয়ে মোহনপুর থানায় ধর্ষণ ও পর্নোগ্রাফি আইনে মামলা করেন। ওই তরুণীর স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য আজ বৃহস্পতিবার রাজশাহী মেডিকেল হাসপাতালের ওয়ান–স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) পাঠিয়েছে পুলিশ।

মোহনপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাক আহম্মেদ বলেন, বাক্‌প্রতিবন্ধী মেয়েকে বাবার বাড়িতে রেখে মা দুই বছর আগে বিদেশে যান। গত বছরের ৯ আগস্ট উপজেলার এক ইউপি সদস্যের ছেলে মেয়েটিকে ধর্ষণ করে সেটির ভিডিও ধারণ করেন। ওই তরুণীর মা গত ২৫ নভেম্বর বিদেশ থেকে বাড়ি আসার পর বিষয়টি জানতে পারেন। তবে সম্মানের কথা চিন্তা করে বিষয়টি চেপে যান। কোনো আইনি পদক্ষেপ নেননি। পরে ধর্ষণের ভিডিওটি ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়া হয়। মেয়ের মা গতকাল মামলা করেন।

পুলিশ জানায়, কয়েক দিন ধরে ধর্ষণের ভিডিওটি এলাকায় ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ে। পুলিশ গতকাল রাতে ধর্ষককে আটক করে থানায় নিয়ে যান। তাঁর দেওয়া তথ্য অনুযায়ী ভিডিও ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগে আরেক তরুণকে রাতেই গ্রেপ্তার করা হয়।

ওসি মোস্তাক আহম্মেদ বলেন, আইনি প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে তরুণীকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওসিসিতে পাঠানো হয়েছে। গ্রেপ্তার দুজনকে আজ আদালতে পাঠানো হয়। তিনি বলেন, ঘোষণা দেওয়া হয়েছে যে এই ভিডিও যার মুঠোফোনে পাওয়া যাবে তাকেই আসামি করা হবে। অনেকেই হয়তো ইতিমধ্যে ভিডিওটি মুছে ফেলেছেন। তবে আসামির কাছ থেকে আলামত হিসেবে ধর্ষণের ভিডিওটি জব্দ করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন