বিজ্ঞাপন
default-image

শেরপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ প্রথম আলোকে বলেন, ফজলে রাব্বী বুধবার সকাল সাড়ে আটটার দিকে থানায় এসে সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করতে চেয়েছিলেন। তাঁর বক্তব্যে অসংগতি পাওয়া যায়। তাঁকে থানায় আটক রেখে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদের একপর্যায়ে রাতে তিনি পুলিশকে জানান, ছিনতাইকারী চক্র তাদের ছুরিকাঘাত করেন। মিনহাজকে তাঁরা শেরপুর উপজেলার জোড়গাছা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশে ধান খেতে ফেলে যান। পুলিশ বৃহস্পতিবার সেখানে তল্লাশি চালিয়ে লাশটি উদ্ধার করে।
দুর্বৃত্তরা খেতে লাশ ফেলে গেছে—এমন সংবাদে গ্রামের কয়েক শ নারী-পুরুষ ওই স্কুলের সামনে অবস্থান নেয়। জোড়গাছা স্কুলের সামনে ছিলেন মিনহাজের বাবা মোজদার আলী শেখ ও বড় ভাই আবদুল মমিন। কোনো সান্ত্বনাতেই তাদের আহাজারি থামছিল না।

অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন