ধুনটে নদীর ঘাট থেকে নিখোঁজ শিশুর ভাসমান লাশ উদ্ধার

বিজ্ঞাপন
default-image

বগুড়ার ধুনট উপজেলায় নিখোঁজের ২৪ ঘণ্টা পর হালিমা খাতুন (১০) নামের এক স্কুলছাত্রীর ভাসমান লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। আজ মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে উপজেলার চিকাশি ইউনিয়নের ইছামতি নদীর ঝিনাই ঘাট এলাকা থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়।

নিহত হালিমা খাতুন উপজেলার সরুগ্রামের আব্দুল বারিকের মেয়ে এবং শেরপুর গাড়ীদহ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণির ছাত্রী।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার বড়িয়া গ্রামে মামা সাকিল হোসেনের বাড়িতে মা-বাবার সঙ্গে ঈদের দিন বেড়াতে গিয়েছিল হালিমা। গতকাল সোমবার দুপুর ১টার দিকে হালিমা খাতুন প্রতিবেশী শিশুদের সঙ্গে বাড়ির পাশে ইছামতি নদীতে গোসল করতে নেমে নিখোঁজ হয়। খবর পেয়ে ধুনট থানা–পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা আজ সকাল থেকে উদ্ধার অভিযান চালায়। দুপুর ১২টার দিকে নিখোঁজ হওয়ার স্থান থেকে দুই কিলোমিটার ভাটিতে ঝিনাই ঘাট এলাকা থেকে হালিমার লাশ উদ্ধার করা হয়।

ধুনট ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের ইনচার্জ আতাউর রহমান এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, পানির প্রবল স্রোতে নিখোঁজ শিশুর লাশ আজ উদ্ধার করা হয়েছে।

ধুনট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কৃপা সিন্ধু বালা বলেন, নদীর পানিতে ডুবে মারা যাওয়া স্কুলছাত্রীর লাশ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন