নাটোর পৌর যুবলীগের কর্মী সজীব আলী গুলিতে আহত হয়েছেন। শহরের মল্লিকহাটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে গতকাল রোববার দুপুরে প্রকাশ্যে তাঁকে গুলি করা হয়। পরিবারের অভিযোগ, দলের প্রতিপক্ষরাই সজীব আলীর ওপর হামলা চালিয়েছে।
জেলা যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বাসিরুর রহমান খান চৌধুরীর ভাষ্যমতে, যুবলীগের কর্মীরাই সজীবের ওপর হামলা করেছেন। তবে বিষয়টি নিতান্তই তাঁদের ব্যক্তিগত। এ ঘটনার সঙ্গে দলীয় কোনো সম্পর্ক নেই। দলে কোনো বিভেদ নেই বলে দাবি করেন তিনি।
সজীব আলীর ভাই সুজন আলী অভিযোগ করেন, সজীব বেলা দুইটার দিকে শহরে মল্লিকহাটির নিজ বাড়িতেই ছিলেন। এ সময় চারটি মোটরসাইকেলে করে যুবলীগের কর্মী সাব্বির হোসেন, হাসান আলীসহ ১০ থেকে ১২ জন কর্মী আসেন। তাঁদের ডাকাডাকিতে সজীব বাড়ি থেকে বের হলে তাঁকে ধরে বিদ্যালয়ের সামনে নিয়ে যান তাঁরা। তারপর তাঁকে একটি মোটরসাইকেলে তুলে অপহরণের চেষ্টা করা হয়। এ সময় সুজন ও পরিবারের অন্য সদস্যরা মিলে সজীবকে টেনে মোটরসাইকেল থেকে নামানোর চেষ্টা করলে তিনি পড়ে যান। তখন দুর্বৃত্তরা সজীবের দুই পায়ে দুটি গুলি করে। আশপাশের লোকজন হামলাকারীদের ঠেকানোর চেষ্টা করলে তারা ফাঁকা গুলি ছুড়ে চলে যায়।
পরে গুলিবিদ্ধ সজীবকে উদ্ধার করে নাটোর আধুনিক সদর হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে তাঁকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়।

বিজ্ঞাপন
অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন