নিখোঁজ চালকের লাশ পাওয়া গেল সেপটিক ট্যাংকে

বিজ্ঞাপন
default-image

নিখোঁজের ১০দিন পর ইজিবাইকচালক কিশোর ময়নুল রহমানের (১৬) লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সাতক্ষীরা সদর উপজেলার বাঁকাল এলাকার একটি ইটভাটার সেপটিক ট্যাংক থেকে আজ সোমবার বিকেল ৪টার দিকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় একজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

ইজিবাইকচালকের বাড়ি সাতক্ষীরা সদর উপজেলার পাঁকরকি গ্রামে। তার বাবার নাম সুরত আলী।
ময়নুলের চাচা আফসার আলী জানান, ময়নুল প্রতিদিনের মতো ইজিবাইক নিয়ে ৩১ জুলাই সকাল নয়টার দিকে বাড়ি থেকে বের হয়। কিন্তু রাতে আর বাড়ি ফেরেনি। পরদিন বিভিন্ন জায়গায় খোঁজাখুঁজি করে তার কোনো সন্ধান না পেয়ে ১ আগস্ট সাতক্ষীরা সদর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন তিনি।
সাতক্ষীরা সদর থানার পরিদর্শক বিপ্লব মণ্ডল জানান, থানায় সাধারণ ডায়েরি করার পর এ ঘটনা নিয়ে অনুসন্ধান শুরু করা হয়। একপর্যায়ে ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে সাতক্ষীরা সদর উপজেলার আলীপুর গ্রামের হুমায়ন কবীরকে আটক করা হয়। তাঁর স্বীকারোক্তি অনুযায়ী সাতক্ষীরা সদর উপজেলার বাঁকাল এলাকার আবদুস সবুরের মালিকানাধীন ইটভাটার সেপটিক ট্যাংক থেকে ময়নুল রহমানের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। ময়নুলের ইজিবাইকটি শ্রীরামপুর গ্রামের হুমায়ন কবীরের শ্বশুরবাড়ি থেকে উদ্ধার করা হয়।
তিনি আরও জানান, ময়নুলের মরদেহের সুরতহাল প্রতিবেদন শেষে ময়নাতদন্তের জন্য সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হবে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন