যশোরের চৌগাছায় পরকীয়ার জেরে এক দম্পতি ও এক কথিত প্রেমিকা কীটনাশক পান করে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন। গত রোববার সন্ধ্যায় উপজেলার দক্ষিণ কয়ারপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। তিনজনই বর্তমানে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।

স্বজনেরা জানান, ওই দম্পতির তিনটি সন্তান রয়েছে। এরপরও গৃহকর্তা মালয়েশিয়াপ্রবাসী তাঁর এক স্বজনের স্ত্রীর সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে পরকীয়া করে আসছেন। বিষয়টি জানাজানি হলে তাঁর স্ত্রী একবার ওষুধ খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। তখন তিনি প্রতিজ্ঞা করেন, আর এমন করবেন না। কিন্তু কিছুদিন পর আবারও তিনি ওই নারীর সঙ্গে পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়েন। গত রোববার তাঁদের পরকীয়ার বিষয়টি ধরা পড়ে। এ নিয়ে বাড়িতে ঝগড়াঝাঁটি হয়। একপর্যায়ে সন্ধ্যায় তাঁর স্ত্রী কীটনাশক পান করে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। বিষয়টি টের পেয়ে কিছুক্ষণ পর তিনি নিজেও কীটনাশক পান করেন। প্রতিবেশীরা তাঁদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যান। বিষয়টি জানাজানি হলে গ্রামের কয়েকজন কথিত প্রেমিকাকে তিরস্কার করেন। পরে তিনিও কীটনাশক পান করে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন গৃহকর্তা বলেন, পারিবারিক কলহের কারণে তিনি আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন। পরকীয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি সরাসরি কোনো জবাব না দিয়ে বলেন, সুস্থ হয়ে তিনি এর একটা বিহিত করবেন।

আর তাঁর স্ত্রী বলেন, তাঁর মেয়েরা বড় হয়েছে। তাদের বিয়ে দিতে হবে। বারবার বলা সত্ত্বেও তাঁর স্বামী পরকীয়ার পথ থেকে সরে না আসায় হতাশা থেকে তিনি আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন