নেত্রকোনায় পরকীয়ার ঘটনার প্রতিবাদ করায় শাহিনুর আক্তার (২৫) নামের অন্তঃসত্ত্বা এক গৃহবধূকে ছুরিকাঘাতে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় চার নারীসহ আটজনকে আটক করা হয়েছে। আজ শনিবার ভোরে শহরের সাতপাই লেভেল ক্রসিং রেল কলোনি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

শাহিনুর রেল কলোনি এলাকার আবদুস সালামের স্ত্রী।

স্থানীয় বাসিন্দা ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, সাতপাই রেল কলোনি এলাকার ইদ্রিস মিয়ার ছেলে সোহেল মিয়ার (২৮) সঙ্গে সম্প্রতি ওই এলাকার বিবাহিত এক নারীর পরকীয়া সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এ নিয়ে গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় প্রত্যক্ষদর্শী শাহিনুরসহ আরও কয়েকজন প্রতিবাদ করেন। এতে সোহেল মিয়া ও তাঁর লোকজনের সঙ্গে শাহিনুরের কথা-কাটাকাটি হয়। পরে তা স্থানীয় লোকজন থামিয়ে দেন।

শাহিনুরের পরিবারের অভিযোগ, ওই ঘটনার জের ধরে আজ ভোর পৌনে পাঁচটার দিকে সোহেল মিয়া ও তাঁর লোকজন শাহিনুরের বাড়িতে গিয়ে তাঁকে ছুরিকাঘাত করে গুরুতর আহত করে। পরে স্থানীয় লোকজন শাহিনুরকে উদ্ধার করে নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

শাহিনুরের স্বজনেরা জানান, তিনি তিন মাসের অন্তঃসত্ত্বা ছিলেন।

নেত্রকোনা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. তাজুল ইসলাম ঘটনার তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, এ ঘটনায় পুলিশ আটজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে। শাহিনুরের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। ঘটনার পর থেকে সোহেল মিয়া পলাতক। তাঁকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0