দিনাজপুরের পার্বতীপুর উপজেলায় এক গৃহবধূ ধর্ষণের শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় গত রোববার স্বামীসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন তিনি।
ওই গৃহবধূ অভিযোগ করেন, চার বছর আগে উপজেলার শফিকুল ইসলামের (২৮) সঙ্গে তাঁর বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই যৌতুকের দাবিতে স্বামী তাঁকে নির্যাতন করে আসছিলেন। সইতে না পেরে দেড় বছর আগে বাবার বাড়িতে চলে যান তিনি। গত ২৪ ডিসেম্বর পলাশবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোফাখখারুল ইসলাম ফারুক সালিসের মাধ্যমে তাঁদের বিরোধ মিটিয়ে দেন। এরপর শফিকুল স্ত্রীকে ঢাকায় নিয়ে যাবেন এবং সেখানে গিয়ে তাঁরা দুজন পোশাক কারখানায় চাকরি করবেন বলে ঠিক হয়। পরের দিন রাতে তাঁর স্বামীর বন্ধু দুলাল হোসেন (২৫) তাদের বাবার (গৃহবধূর) বাড়িতে আসে। এ সময় দুলাল তাঁকে জানান, শফিকুল ঢাকায় যাওয়ার জন্য বাসস্ট্যান্ডে অপেক্ষা করছেন। এরপর কৌশলে তিলাই নদীর পাড়ে নিয়ে দুলাল তাঁকে ধর্ষণ করে।
এ ঘটনায় রোববার রাতে পার্বতীপুর মডেল থানায় করা মামলায় ওই গৃহবধূ তাঁর স্বামী শফিকুল ইসলাম এবং তাঁর বন্ধু দুলাল হোসেন, পিয়ারুল হক, মো. পালোয়ান ও নূর আলমকে আসামি করেছেন। ঘটনার পর থেকে সবাই পলাতক।

বিজ্ঞাপন
অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন