default-image
default-image

রাজশাহী শহররক্ষা বাঁধের পিলার ভেঙে রাতের অন্ধকারে আবার উঠছে বালুর ট্রাক। গত জুলাই মাসে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বাঁধের ওপর সিমেন্টের তৈরি ১০টি পিলার পুঁতে দেওয়া হয়। এর পর থেকে বন্ধ ছিল বালু তোলা।
গত শুক্রবার রাতে নগরের শ্রীরামপুর এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, ডিআইজি প্রিজনের বাসার ঠিক বিপরীতে পদ্মা নদীর ঘাট থেকে বালু তোলা হচ্ছে। সিমেন্টের তৈরি যে ১০টি পিলার পুঁতে দেওয়া হয়েছিল, তার মধ্যে সাতটি পিলার ভেঙে ট্রাক চলাচলের ব্যবস্থা করা হয়েছে। পাশে এখনো তিনটি পিলার রয়ে গেছে। বিরতিহীনভাবে বাঁধের ওপর দিয়ে বালুবোঝাই ট্রাক উঠছে আর নামছে।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, চার-পাঁচ দিন আগে সন্ধ্যার পরপরই বালুর ট্রাক নামতে শুরু করে। ভোর পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে বালু তোলা হয়।
গত শনিবার সকালে আবার সেখানে গিয়ে দেখা যায়, বালুবোঝাই করে বাঁধে ওঠার ঠিক আগে ইঞ্জিনে ত্রুটি দেখা দেওয়ায় একটি ট্রাক রাত থেকে সেখানে আটকে আছে। চালক জহুরুল ইসলাম বলেন, শহরের ভেতরে প্রতি ট্রাক বালু তাঁরা সাড়ে পাঁচ হাজার টাকায় সরবরাহ করছেন। মালিকের পরিচয় জানতে চাইলে তিনি বলেন, বালু নিতে হলে গাড়ির চালকদের সঙ্গেই যোগাযোগ করতে হবে। পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) সূত্রে জানা গেছে, শহররক্ষা বাঁধের ওপর দিয়ে ১০ দশমিক ৫০ কিলোমিটার পাকা রাস্তা নির্মাণ করা হয়। মানুষের হেঁটে চলার জন্যই রাস্তাটি নির্মাণ করা হয়। যানবাহন উঠলে বাঁধ ক্ষতিগ্রস্ত হবে—এ আশঙ্কায় মাঝেমধ্যে ব্যারিকেড নির্মাণ করা হয়।
রাজশাহী পাউবোর নির্বাহী প্রকৌশলী হারুন অর রশিদ বলেন, নগরের বুলনপুর এলাকায় বালু তোলার খবর পেয়ে তাঁরা ইতিমধ্যে রাজপাড়া থানায় অভিযোগ করেছেন। কিন্তু শ্রীরামপুরের খবর এখনো তাঁরা পাননি।

বিজ্ঞাপন
অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন