default-image

রংপুরের পীরগাছা উপজেলায় স্ত্রী তাসলিমা আক্তারকে (২৩) কুপিয়ে হত্যার পর আত্মহত্যা করেছেন স্বামী আবদুল্লাহ আল মাসুদ (২৮)। আজ সোমবার দুপুরে উপজেলার চৌধুরানী ব্র্যাক কার্যালয়ের ভেতরে এই ঘটনা ঘটে। নিহত তাসলিমা ব্র্যাকের ওই কার্যালয়ের ক্যাশিয়ার পদে কর্মরত ছিলেন।

তাসলিমার বাড়ি রংপুরের পীরগাছা উপজেলার সুবিদ গ্রামে। স্বামী আবদুল্লাহ আল মাসুদের বাড়ি গাইবান্ধার বল্লমঝাড় এলাকায়।

পীরগাছা থানার পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, সোমবার সকাল থেকে নিজ কার্যালয়ে বসে কাজ করছিলেন তাসলিমা। দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে আবদুল্লাহ সেখানে এসে তাসলিমাকে আলাদা একটি কক্ষে নিয়ে গিয়ে এলোপাতাড়িভাবে কোপান। এরপর গলায় ওড়না পেঁচিয়ে ওই কক্ষের সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ঝুলে আত্মহত্যা করেন আবদুল্লাহ। পুরো ঘটনার সময় অফিসে তাসলিমার আর কোনো সহকর্মী ছিলেন না। পরে স্থানীয় লোকজন তাসলিমাকে উদ্ধার করে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসকেরা তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে আবদুল্লাহর মরদেহ উদ্ধার করে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে পীরগাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রেজাউল করিম প্রথম আলোকে বলেন, বিয়ের পর স্ত্রীকে দেশে রেখে কয়েক বছর বিদেশে ছিলেন আবদুল্লাহ। ছয় মাস আগে দেশে ফেরার পর স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে টানাপোড়েন শুরু হয়। সেই জেরেই এই ঘটনা ঘটে থাকতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এই ঘটনায় একটি অপমৃত্যুর মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

বিজ্ঞাপন
অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন