বগুড়ার শাজাহানপুরে ধর্ষণের অভিযোগে পুত্রবধূর (২৩) করা মামলায় শ্বশুরকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-১২। গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়। এ ঘটনায় গতকালই পুত্রবধূ বাদী হয়ে শাজাহানপুর থানায় মামলা করেন। আজ রোববার শ্বশুরকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

মামলার এজাহারে বাদী উল্লেখ করেছেন, মাঝে মাঝে শ্বশুর তাঁকে কু-প্রস্তাব দিতেন। সম্পত্তি লিখে দেওয়ার প্রস্তাবও দিতেন। গৃহবধূর স্বামী শ্রমিকের কাজ করেন। এর মধ্যে ১৬ ফেব্রুয়ারি রাত সাড়ে আটটার দিকে বাড়িতে একা ছিলেন গৃহবধূ। এ সুযোগে শ্বশুর তাঁকে ধর্ষণ করেন। এ সময় চিৎকার করলে তাঁর সন্তান ঘুম থেকে জেগে ওঠেন। পরে তাঁর শ্বশুর ঘর থেকে বের হয়ে যান। এ ঘটনার পর গৃহবধূ তাঁর খালাতো বোনের বাড়িতে চলে যান। পরে তিনি বিষয়টি তাঁর স্বামীকে জানান।

মামলার বাদী গতকাল তাঁর স্বামীকে সঙ্গে নিয়ে বগুড়ার র‌্যাব-১২ ক্যাম্পে গিয়ে অভিযোগ করেন। এরপর ওই দিন বিকেলে র‌্যাব সদস্যরা অভিযান চালিয়ে গৃহবধূর শ্বশুরকে আটক করেন। র‌্যাব-১২-এর কোম্পানি কমান্ডার মেজর এস এম মোর্শেদ হাসান জানান, ‘শ্বশুরকে আটকের সময় আলামত সংগ্রহ করা গেছে।’

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা শাজাহানপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জিয়া লতিফুল ইসলাম জানান, আসামিকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। গৃহবধূকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0