বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০-দলীয় জোটের টানা অবরোধের মধ্যে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সীতাকুণ্ডের নুনাছড়া এলাকায় পুলিশের গুলিতে একজন নিহত হয়েছেন। গুলিবিদ্ধ হন আরও চারজন। গতকাল শনিবার রাত সাড়ে নয়টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। 
এ নিয়ে অবরোধ-হরতালে সহিংসতায় গতকাল পর্যন্ত সারা দেশে নিহতের সংখ্যা দাঁড়াল ৮৮ জনে। এর মধ্যে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত হন ১৯। গতকাল ছিল টানা অবরোধের ৪০তম দিন।
পুলিশ জানায়, সীতাকুণ্ডের নুনাছড়া এলাকায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে নাশকতার চেষ্টা চালায় দুর্বৃত্তরা। তারা ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটায়। পুলিশ এগিয়ে গেলে দুর্বৃত্তরা পুলিশকে লক্ষ্য করে জাহাজের সিগন্যাল লাইট ছুড়ে মারে। পুলিশ পাল্টা গুলি ছুড়লে পাঁচজন গুলিবিদ্ধ হন। এ সময় তাঁদের কাছ থেকে ১০টি ককটেল, একটি এলজি, তিনটি গুলি, অকটেনভর্তি জারিকেন ও দুটি পেট্রলবোমা উদ্ধার করা হয়।
সীতাকুণ্ড মডেল থানার সহকারী পুলিশ সুপার সাইফুল ইসলাম জানান, আহত পাঁচজনকে পুলিশি পাহারায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক একজনকে মৃত ঘোষণা করেন। মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন হাসপাতালের চিকিৎসক ফয়সল ইকবাল চৌধুরী।
নিহত ব্যক্তির নাম আরিফ (২০) বলে জানিয়েছেন চট্টগ্রামের পুলিশ সুপার এ কে এম হাফিজ আক্তার। তিনি আরও জানান, গুলিবিদ্ধ অপর চারজন হলেন মো. পারভেজ, মো. রুবেল, সোহেল ও নুর হাবিব। তাঁদের বয়স ১৬ থেকে ১৮ বছর। তাঁরা সীতাকুণ্ড এলাকায় একটি ট্রাকেও আগুন দিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন
অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন