মাগুরার শালিখা উপজেলায় এক বিএনপি নেতাকে ‘হত্যা’র অভিযোগ উঠেছে। নিহত মশিয়ার রহমান উপজেলার শতখালী ইউনিয়নের এক নম্বর ওয়ার্ড বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। তবে পুলিশের দাবি তিনি ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মারা গেছেন। আজ রোববার সন্ধ্যায় এ ঘটনা ঘটে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে দুজন প্রত্যক্ষদর্শী প্রথম আলোকে জানান, বিএনপি নেতা মশিয়ার রহমান ও ফারুক হোসেন সন্ধ্যা ছয়টার দিকে ছয়ঘরিয়া নতুন বাজারে বসে চা খাচ্ছিলেন। এ সময় বাজারে পুলিশ দেখে তাঁরা দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করেন। এ সময় পুলিশ তাঁদের লক্ষ্য করে গুলি করলে মশিয়ার রহমান গুলিবিদ্ধ হয়ে লুটিয়ে পড়েন। ফারুক হোসেন গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পালিয়ে যান। পরে মাগুরা সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকেরা মশিয়ারকে মৃত ঘোষণা করেন।

তবে মাগুরার সহকারী পুলিশ সুপার (সার্কেল) সুদর্শন রায়ের ভাষ্য, সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টার দিকে অবরোধ সমর্থকেরা মাগুরা-যশোর সড়কের ওই এলাকায় প্রতিবন্ধকতা তৈরির জন্য জড়ো হয়। এ সময় তারা সড়কে ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটিয়ে আতঙ্ক সৃষ্টি করে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ সেখানে গেলে তারা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল, বোমা ও গুলি ছোড়ে। এ সময় পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। পরে ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ গুলিবিদ্ধ অবস্থায় মশিয়ার রহমানকে উদ্ধার করে।
সুদর্শন রায় জানান, তবে কার গুলিতে মশিয়ার মারা গেছেন সেটি নিশ্চিত নন। ঘটনার সময় পুলিশের সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) মো. হাফিজ আহত হন। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে চারটি পেট্রলবোমা উদ্ধার করেছে।

মাগুরা সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক মমতাজ মজিদ প্রথম আলোকে জানান, মশিয়ার রহমানের ডান ঊরুতে গুলি লেগেছিল। হাসপাতালে আনার আগেই তাঁর মৃত্যু হয়।

বিজ্ঞাপন
অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন