default-image

সংসারে অভাবের কারণে উপার্জনের আশায় হরতালেও রিকশা নিয়ে বের হয়েছিলেন রিকশাচালক আফজাল হোসেন (৫০)। কিন্তু কাল হলো সেটাই। যানবাহনহীন ফাঁকা শহরে চালকের ‘খামখেয়া​িলপনায়’ উল্টো দিক থেকে আসা পুলিশের সাঁজোয়াযান (এপিসি) উঠে গেল রিকশায়।

অল্পের জন্য রিকশাওয়ালা প্রাণে রক্ষা পেলেও যানের নিচে চাপা পড়ে মুহূর্তেই চুরমার হয়ে যায় রিকশাটি। আহত হয়ে রিকশাচালক আফজাল হোসেনকে যেতে হলো হাসপাতালে।
আজ রোববার দুপুর পৌনে ১২টার দিকে বগুড়া শহরের ব্যস্ততম সাতমাথায় শত শত পথচারীর সামনেই এই ঘটনা ঘটে। আফজাল হোসেনের বাড়ি বগুড়ার কাহালু উপজেলার কচুয়া গ্রামে।
প্রত্যক্ষদর্শী কয়েক ব্যক্তি জানান, ২০-দলীয় জোটের রোববারের হরতালে শহরের রাস্তাঘাট ছিল প্রায় ফাঁকা। দুপুর পৌনে ১২টার দিকে রিকশা নিয়ে সাতমাথা বীরশ্রেষ্ঠ স্কয়ারের গোল চক্কর ঘুরে স্টেশন সড়কের দিকে যাচ্ছিলেন আফজাল। রিকশাটি জিলা স্কুল মোড়সংলগ্ন সাংবাদিক ছাউনীর সামনে আসামাত্র উল্টো দিক থেকে আসা পুলিশবহনকারী সাঁজোয়াযান ট্রাফিক আইন লঙ্ঘন করে হঠাৎ সার্কিট হাউস সড়কের দিকে ঘুরতে গেলে রিকশার ওপর তা উঠে পড়ে। এতে অল্পের জন্য আফজাল প্রাণে রক্ষা পেলেও রিকশাটি দুমড়ে-মুচড়ে যায়। আহত রিকশাচালককে উদ্ধার করে দ্রুত শহরের মোহাম্মদ আলী হাসপাতালে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়। শহরের ব্যস্ততম স্থানে সাঁজোয়াযান দিয়ে গ​িরব মানুষের উপার্জনের অবলম্বনটি চাপা দেওয়ায় উপস্থিত পুলিশ কর্মকর্তারা বিব্রত হয়ে পড়েন।

default-image

আফজাল হোসেন জানান, রিকশাটিই ছিল উপার্জনের একমাত্র অবলম্বন। পুলিশের গাড়ির ​িনচে স্বপ্নের রিকশাটি চাপা পড়ে চুরমার হওয়ায় এখন তাঁকে স্ত্রী-সন্তান নিয়ে অনাহারে থাকতে হবে।
আবদুল হাকিম নামে একজন পথচারী ক্ষোভ প্রকাশ করে জানান, পুলিশই আইন লঙ্ঘন করে উল্টো পথে সাঁজোয়াযান নিয়ে ঘুরতে গিয়ে একজন নিরীহ গ​িরব রিকশাচালককে পথে বসিয়েছে। অল্পের জন্য তিনি প্রাণে বেঁচে গেলেও তাঁর রিকশাটি মুহূর্তেই দুমড়ে-মুচড়ে গেছে।
এ ব্যাপারে পুলিশের সাঁজোয়াযানের চালক সাদেক আলী কোনো মন্তব্য করতে চাননি।
বগুড়ার টাফিক সার্জেন্ট নাহিদ পারভেজ চৌধুরী জানান, ঘটনাটি অনাকাঙ্ক্ষিত। আহত রিকশাচালককে তাৎক্ষণিক উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।
বগুড়ার সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) গাজিউর রহমান এ ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করে জানান, গ​িরব রিকশাচালককে ক্ষতিপূরণ প্রদান করা হবে। বিষয়টি তদন্ত করে চালক দোষী সাব্যস্ত হলে তাঁর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিজ্ঞাপন
অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন