নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লায় ফাহিম আহম্মেদ নামে হোসিয়ারি কারখানার এক কর্মকর্তাকে ভারী বস্তু ও ধারালো অস্ত্রের আঘাতে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে।
গতকাল রোববার সকালে ফতুল্লার কাশিপুরের রূপাইয়া হোসিয়ারি কারখানার তালা ভেঙে গুরুতর অবস্থায় ফাহিম আহম্মেদকে উদ্ধার করা হয়। হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকেরা তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।
ফাহিম আহম্মেদের ভগ্নিপতি ও রূপাইয়া হোসিয়ারি কারখানার মালিক রাশেদ শিকদার বলেন, কারখানার মার্কেটিং ম্যানেজারের দায়িত্বে ছিলেন ফাহিম। ফাহিম ছাড়াও দুই শ্রমিক সোহাগ ও তাঁর (রাশেদ) ভাগনে ইউসুফ রাতে কারখানায় ঘুমাতেন। গতকাল সকালে তিনি (রাশেদ) কারখানায় গিয়ে তালাবদ্ধ দেখতে পান। তিনি তালা খুলে ভেতরে ঢুকে দেখেন, ফাহিম রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে আছেন। তাঁকে উদ্ধার করে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়। পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকেরা তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। তিনি বলেন, সোহাগ ও ইউসুফের সঙ্গে ফাহিমের বিরোধ ছিল।
ফতুল্লা মডেল থানার ওসি কামাল উদ্দিন বলেন, ফাহিমের মাথায় ভারী বস্তু ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন