ফরিদপুরে স্ত্রী হাসি বেগমকে (২৮) হত্যার দায়ে স্বামী জাহাঙ্গীর মীরের (৩৪) যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হয়েছে। একই সঙ্গে তাঁকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা এবং জরিমানা অনাদায়ে আরও ছয় মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। সোমবার সকালে ফরিদপুরের বিশেষ জজ আদালতের বিচারক মো. মতিয়ার রহমান এ রায় ঘোষণা করেন।
জাহাঙ্গীর ফরিদপুর সদরের বঙ্গেশ্বর্দী গ্রামের বাসিন্দা। তিনি পেশায় একজন কাঠমিস্ত্রি। হাসি বেগম পাশের বোয়ালমারী উপজেলার সাতৈর গ্রামের আবু মৃধার মেয়ে। এই দম্পতির দুই ছেলে।

বিজ্ঞাপন

মামলার এজাহারের ভিত্তিতে আদালতের পেশকার সাধন কুমার বালা বলেন, ২০১৮ সালের ২০ এপ্রিল দুপুরে পারিবারিক কলহের একপর্যায়ে স্ত্রীকে মারধর করতে থাকেন জাহাঙ্গীর। এতে হাসি বেগম মৃত্যু হয়। তখন জাহাঙ্গীর স্ত্রীর গলায় ওড়না পেঁচিয়ে ঘরের আড়ার সঙ্গে ঝুলিয়ে আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেন। এ ঘটনায় বঙ্গেশ্বর্দী গ্রামের দফাদার আয়নাল মোল্লা বাদী হয়ে ফরিদপুর কোতোয়ালি থানায় একটি মামলা করেন। ২০১৮ সালের ২৪ আগস্ট এই মামলায় অভিযোগপত্র দেন তদন্তকারী কর্মকর্তা ফরিদপুর কোতোয়ালি থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. আসলামউদ্দিন।
২০১৮ সালের ২ জুন জাহাঙ্গীরকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারের পর থেকে তিনি জেলহাজতে ছিলেন। গতকাল রায়ের সময় তিনি আদালতে উপস্থিত ছিলেন। রায়ের পর জাহাঙ্গীরকে জেলা কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়।

মন্তব্য পড়ুন 0