ফেনীর ফুলগাজীর দক্ষিণ শ্রীপুরে গতকাল বুধবার দুপুরে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি-সমর্থকদের পাল্টাপাল্টি হামলা ও সংঘর্ষে ছাত্রদলের তিন কর্মী আহত হয়েছেন। এ সময় একটি মোটরসাইকেল, একটি সিএনজিচালিত অটোরিকশা ও একটি দোকানে আগুন এবং অপর একটি মোটরসাইকেল ভাঙচুর করা হয়।
পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্র জানায়, গতকাল দুপুরে উপজেলার দক্ষিণ শ্রীপুর গ্রামে আওয়ামী লীগের সমর্থক এ টি এম ইয়াসিন ছাদেক ওরফে বিপ্লব নামের এক ব্যক্তির সঙ্গে মো. পিনু নামে ছাত্রদলের কর্মীর কথা-কাটাকাটি হয়। এর জের ধরে যুবদল-ছাত্রদলের কর্মীরা বিপ্লবের ওপর ইটপাটকেল নিক্ষেপ করেন। খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহিদুর রহমান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. সেলিম সেখানে যান। এ সময় যুবদল-ছাত্রদলের কর্মীরা মো. সেলিমের মোটরসাইকেলে আগুন দেন। একই সময়ে ছাত্রদল-যুবদলের কর্মীরা অপর একটি মোটরসাইকেল ভাঙচুর করেন এবং একটি সিএনজিচালিত অটোরিকশায় আগুন দেন।
আওয়ামী লীগের নেতার মোটরসাইকেলে আগুন দেওয়ার খবর শুনে ফুলগাজী থেকে ছাত্রলীগ-যুবলীগের কর্মীরা ঘটনাস্থলে যান এবং তাঁরা ছাত্রদলের কর্মী মো. রাশেদের মুদি দোকানে আগুন দেন ও তাহের মিয়ার দোকান ভাঙচুর করেন।
ফুলগাজী উপজেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ফরিদ আহম্মদ অভিযোগ করেন, ছাত্রলীগ-যুবলীগের কর্মীরা বিনা উসকানিতে ছাত্রদলের তিন কর্মীকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে আহত করেন।
মো. সেলিম হামলা ও ভাঙচুরের জন্য ছাত্রদল ও যুবদলের কর্মীদের দায়ী করেছেন।
ফুলগাজী থানার ওসি হারুন অর রশিদ বলেন, এ টি এম ইয়াসিন ছাদেক ওরফে বিপ্লব তাঁর বাড়িতে হামলার ঘটনায় বাদী হয়ে ছাত্রদল-যুবদলের নয়জনের নাম উল্লেখসহ ২০-২৫ জনকে অজ্ঞাত হিসেবে আসামি করে ফুলগাজী থানায় মামলা করেছেন। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।

বিজ্ঞাপন
অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন