বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রারের কক্ষে হামলা, ভাঙচুর ও সহকারী রেজিস্ট্রারকে মারধরের অভিযোগে ১৬ শিক্ষার্থীকে বিভিন্ন মেয়াদে বহিষ্কার করা হয়েছে। গতকাল রোববার রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের লিয়াজোঁ কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সিন্ডিকেট সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

বহিষ্কৃত শিক্ষার্থীদের মধ্যে তিনজনকে স্থায়ীভাবে, চারজনকে দুই এবং বাকি নয়জনকে এক বছরের জন্য বহিষ্কার করা হয়েছে।

সিন্ডিকেট সদস্য ও সহকারী প্রক্টর মো. শফিউল আলম প্রথম আলোকে বলেন, সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী অর্থনীতি বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী সাইদুল ইসলাম, ব্যবস্থাপনা বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী আল মামুন এবং ব্যবস্থাপনা বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী এনামুল হক মনিকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হয়। অন্যদের বিভিন্ন মেয়াদে বহিষ্কার করা হলেও তিনি তাঁদের নাম বলতে পারেননি।

বর্ধিত সেশন ফি কমানোসহ ১৩ দফা দাবিতে সাধারণ শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের সময় গত ৫ জুন রেজিস্ট্রারের কক্ষ ভাঙচুর এবং সহকারী রেজিস্ট্রারকে মারধরের ঘটনা ঘটে। ওই ঘটনায় ৩০ জুন বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ছয় শিক্ষার্থীকে সাময়িকভাবে বহিষ্কার করেছিল। একই সঙ্গে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। তদন্ত কমিটি ৩০ সেপ্টেম্বর ১৬ শিক্ষার্থীকে অভিযুক্ত করে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করে। এরপর সিন্ডিকেটের দুটি সভা অনুষ্ঠিত হলেও সিদ্ধান্ত হয়নি। ২৮ ডিসেম্বর সভায় অভিযুক্ত শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে বিশ্ববিদ্যালয় কতৃ‌র্পক্ষ।

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য হারুনর রশীদ খান প্রথম আলোকে বলেন, তদন্ত কমিটি ভিডিও দেখে অভিযুক্ত শিক্ষার্থীদের শনাক্ত করেছে। তা ছাড়া অভিযুক্ত শিক্ষার্থীরাও হামলার কথা স্বীকার করেছে। কমিটির সুপারিশের আলোকে তাদের বহিষ্কার করা হয়।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে সিন্ডিকেট সভায় উপস্থিত এক সদস্য প্রথম আলোকে জানান, গত সেপ্টেম্বর মাসে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়ার পর দুটি সভা হলেও কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। হঠাৎ করে ২৮ তারিখের সিন্ডিকেট সভায় বিষয়টি উত্থাপন করা হয়। সভার নোটিশের কার্যতালিকায় ওই বিষয়টি ছিল না। এমনকি সদস্যদের আগে জানানোও হয়নি।

এ ব্যাপারে উপাচার্য প্রথম আলোকে বলেন, ১৮ অক্টোবর এবং ৬ ডিসেম্বর সিন্ডিকেট সভায় নিয়োগ-সংক্রান্ত বিষয় থাকায় শিক্ষার্থীদের বিষয়টি আনা হয়নি। আর ২৮ ডিসেম্বরের সভার আগেই সদস্যদের জানানো হয়েছে এবং এজেন্ডাভুক্ত করা হয়।

বিজ্ঞাপন
অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন