জমি নিয়ে বিরোধের জেরে পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলার সূর্য্যমরি ইউনিয়নের রামনগর গ্রামে প্রতিপক্ষের লোকজন গতকাল শনিবার নাজমা বেগম (৩৭) নামে এক গৃহবধূকে মারধর করে তাঁর বাঁ কান কেটে ফেলার চেষ্টা চালিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। তাঁকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভর্তি করা হয়েছে। 
আহত ওই নারীর স্বামীর নাম মো. জাকির হাওলাদার। তিনি ঢাকায় শ্রমিকের কাজ করেন।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, রামনগর গ্রামের মো. জাকির হাওলাদারের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে একই বাড়ির আবদুল খালেক ও আবদুর রাজ্জাক হাওলাদারের জমি নিয়ে বিরোধ চলছে। জাকির ঢাকায় শ্রমিকের কাজ করার কারণে তাঁর স্ত্রী নাজমা একমাত্র সন্তান জিয়াদকে (১১) নিয়ে বাড়িতে থাকেন।
নাজমা বেগম অভিযোগ করেন, গতকাল সকাল আটটার দিকে আবদুল খালেকের ছেলে শাহিনের নেতৃত্বে কয়েকজন জোরপূর্বক তাঁর ঘরে ঢুকে ঘর ছেড়ে চলে যাওয়ার জন্য হুমকি দেয়। এতে রাজি না হওয়ায় তাঁকে মারধর করা হয়। একপর্যায়ে তাঁর বাঁ কান কেটে ফেলার চেষ্টা চালায়। তাঁর চিৎকারে স্থানীয় লোকজন ছুটে আসে। ততক্ষণে শাহিন তাঁর লোকজন নিয়ে চলে যায়। পরে স্থানীয় লোকজন তাঁকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভর্তি করায়।
অভিযোগ অস্বীকার করে শাহিন বলেন, ‘এ ঘটনার সঙ্গে তিনি ও তাঁর লোকজন জড়িত না।’
উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসা কর্মকর্তা মো. ইলিয়াছ বলেন, ‘তাঁর (নাজমা বেগম) বাঁ কানের গোড়ার অংশ তিন থেকে চার ইঞ্চি পরিমাণ কেটে গেছে। তবে তিনি এখন আশঙ্কামুক্ত। তাঁকে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।’
বাউফল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আ জা ম মাসুদুজ্জামান বলেন, খবর পেয়ে ওই নারীকে দেখতে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। তাঁকে লিখিত অভিযোগ দেওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0