default-image

ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার জিন্নানগর বাজারের জায়গা দখল করে মার্কেট নির্মাণ করছেন আওয়ামী লীগের এক নেতা। কাজী রবিউল ইসলাম নামের ওই নেতা বাজারের প্রায় ছয় শতক জমিতে চারটি পাকা ঘর নির্মাণ শুরু করেছেন।
সরেজমিনে দেখা যায়, মহেশপুর উপজেলার অন্যতম ব্যস্ত বাজার এটি। এখানে ৫০০ থেকে ৬০০টি ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান রয়েছে। 
বাজারের মাঝ দিয়ে চলে গেছে উপজেলার প্রধান সড়ক। এটি ঘেঁষে পশ্চিম পাশে বাজারের মাঝামাঝি প্রায় ছয় শতক জমির চারদিকে খুঁটি গেড়ে দখল করা হয়েছে।
কাজিরবেড় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহসভাপতি কাজী রবিউলদুই মাস ধরে ওই জায়গায় দোকান ঘর তুলছেন বলে স্থানীয় লোকজন জানিয়েছেন। অন্য ব্যবসায়ীদের প্রতিবাদের মুখে কিছুদিন নির্মাণকাজ বন্ধ রেখেছিলেন। গত শুক্রবার থেকে তিনি আবারও নির্মাণকাজ শুরু করেছেন। 
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বাজারের এক ব্যবসায়ী বলেন, জমিটি সরকারের ১/১ খতিয়ানভুক্ত। এখানে ওই আওয়ামী লীগের নেতা ঘর করতে পারেন না। ওই ব্যবসায়ী আরও বলেন, যেখানে ঘর তোলা হচ্ছে, সেখানে সাপ্তাহিক বাজারের দিন খোলা দোকান বসে। ওই নেতা সেখানে ঘর তুললে সাধারণ ব্যবসায়ীরা ক্ষতিগ্রস্ত হবেন। তা ছাড়া বাজারের জায়গাও কমে যাবে। কাজী রবিউল ক্ষমতাসীন দলের লোক হওয়ায় কেউ তাঁর বিরুদ্ধে মুখ খুলতে সাহস পাচ্ছেন না।

তারপরও সাধারণ ব্যবাসায়ীরা একবার বাধা দিয়েছিলেন। কিন্তু প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোনো পদক্ষেপ না নেওয়ায় আবারও ওই নেতা নির্মাণকাজ শুরু করেছেন।

অবশ্য কাজী রবিউলের দাবি, এই স্থানে তাঁর আগে থেকেই দোকান ছিল। এখন সেটি ভেঙে পাকা করছেন মাত্র।

তা ছাড়া জায়গা নিয়ে বিতর্ক থাকায় আদালতে তিনি একটি মামলা করেছেন বলেও জানান।

এ ব্যাপারে ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তা মো. আকরামুজ্জামান বলেন, তিনি বিষয়টি শুনে কাজ বন্ধের নির্দেশ দিয়েছেন। জায়গাটি বাজারের। তাই এখানে পাকা ঘর করার সুযোগ নেই।

উপজেলা ভূমি কর্মকর্তা হাফিজ আল আসাদ বলেন, বিষয়টি তাঁর জানা ছিল না। খোঁজ নিয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেবেন। 

বিজ্ঞাপন
অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন