মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে গতকাল শনিবার শহীদ মিনারে ফুল দেওয়ার সময় নেত্রকোনার মদন উপজেলা বিএনপির দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। এতে অন্তত ১০ জন আহত হন।
সংঘর্ষে গুরুতর আহত উপজেলা বিএনপির যুববিষয়ক সম্পাদক ও উপজেলা যুবদলের সভাপতি সাঈফ আহমেদ ওরফে সেকুল এবং পৌর বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক পুতুল মিয়াকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। প্রত্যক্ষদর্শী, দলীয় সূত্র ও পুলিশ জানায়, সকালে উপজেলা বিএনপির ‘বিদ্রোহী’ পক্ষের নেতা হিসেবে পরিচিত ফজলে এলাহী ও আবদুল হেলিম তাঁদের অনুসারীদের নিয়ে উপজেলার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। একই সময়ে শ্রদ্ধা জানাতে আসেন উপজেলা বিএনপির সভাপতি নূরে আলম ও সাধারণ সম্পাদক মজিবুর রহমানসহ পৌর বিএনপির নেতারা। একপর্যায়ে এক পক্ষ অপর পক্ষকে ‘রাজাকার’ বলে কটূক্তি করে। এর জের ধরে শহীদ মিনার প্রাঙ্গণ থেকে বেরিয়ে অদূরে উপজেলা বিএনপির কার্যালয়ের সামনে দুই পক্ষ প্রথমে হাতাহাতি ও পরে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।
উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা এম এ কুদ্দুছ জানান, সাঈফ আহমেদের বুকে ধারালো অস্ত্রের আঘাত লেগেছে। এ ছাড়া ঢিলের আঘাতে পুতুল মিয়ার ডান চোখ মারাত্মক জখম হয়েছে। উন্নত চিকিৎসার জন্য তাঁদের ময়মনসিংহে পাঠানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন