মেহেরপুরের মুজিবনগর উপজেলার আমদাহ ইউনিয়নের সোনাপুর সীমান্তে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) গুলিতে এক বাংলাদেশি নিহত হয়েছেন। গতকাল শুক্রবার দিবাগত রাতে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত ব্যক্তির নাম আবদুল খালেক (৩১)। বাড়ি মুজিবনগর উপজেলার মাঝপাড়া গ্রাম। বাবা নাম ধুলু মল্লিক।

পরিবারের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে, খালেক পেশায় কৃষক ছিলেন। তবে সীমান্ত এলাকার কয়েকজনের ভাষ্য, গরু ব্যবসার সঙ্গে জড়িত ছিলেন তিনি।

বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) ৬ ব্যাটালিয়নের ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক মেজর আনোয়ার জাহিদ প্রথম আলোকে বলেন, মধ্যরাতে মুজিবনগর সীমান্তে বিএসএফের গুলিতে এক বাংলাদেশি নিহত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া গেছে। এ ব্যাপারে আজ শনিবার আনুষ্ঠানিকভাবে বিএসএফের কাছে প্রতিবাদ জানানো হবে। এ জন্য আজ বেলা ১১টার দিকে সীমান্তে পতাকা বৈঠক আহ্বান করা হবে।

মুজিবনগর বিজিবি ক্যাম্প কমান্ডার নায়েক সুবেদার শফিকুল ইসলাম বলেন, গতকাল রাত সাড়ে ১১টার দিকে সীমান্তের ১০৭ মেইন পিলারের কাছে বিএসএফের ছোড়া গুলির শব্দ শোনা যায়। ওই সময় সীমান্তে বিজিবির কোনো টহল ছিল না। পরে বিজিবি ও গ্রামবাসী ঘটনাস্থলে যান। সেখানে খালেককে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখা যায়। তাঁকে উদ্ধার করে মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হয়। রাত ১২টার দিকে জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিত্সক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। তাঁর লাশ হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে।

নিহত ব্যক্তির পরিবারের দাবি, জমিতে সেচযন্ত্র পাহারা দিতে সীমান্তে গিয়েছিলেন খালেক। তখন বিএসএফ তাঁকে লক্ষ করে গুলি করে।

ওই সীমান্ত এলাকায় বসবাসরত কয়েকজনের ভাষ্য, সীমান্ত দিয়ে গরু পারাপারের সময় বিএসএফের গুলিতে নিহত হন খালেক।

বিজ্ঞাপন
অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন