default-image

জাল কাগজপত্রের মাধ্যমে ভুয়া ব্যাংক হিসাব খুলে সাধারণ বিমা করপোরেশনের ২৬ কোটি টাকা তুলে নিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির সাবেক ম্যানেজার ও শাখাপ্রধান মো. আবুল কাশেম। এ অভিযোগে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) আজ সোমবার তাঁর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে। আবুল কাশেম এখন সাধারণ বিমার অডিট অ‌্যান্ড কমপ্লায়েন্স বিভাগে কর্মরত আছেন।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, আবুল কাশেম সাধারণ বিমার ম্যানেজার ও শাখাপ্রধান থাকতে কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া এক্সিম ব্যাংকের পুরান ঢাকার ইমামগঞ্জ শাখায় ভুয়া নামে একটি ব্যাংক হিসাব খোলেন। সেখানে ২০১০ সালের ১ এপ্রিল থেকে চলতি বছরের ৫ অক্টোবর পর্যন্ত সাধারণ বিমার প্রিমিয়ামের ২৭ কোটি ৭৭ লাখ ৯০ হাজার ৩০ টাকা জমা করেন। এর মধ্যে ২৬ কোটি ১৪ লাখ ৯৮ হাজার ২০৩ টাকা তিনি তুলে নেন।

বিজ্ঞাপন

দুদকের অনুসন্ধানে দেখা যায়, আবুল কাশেম ব্যাংক হিসাব খোলার জন্য সাধারণ বিমার পরিচালনা পর্ষদের ৪৯২তম সভার যে সিদ্ধান্তপত্র দাখিল করেছেন, তা ভুয়া।

প্রকৃতপক্ষে এক্সিম ব্যাংকের ওই শাখায় হিসাব খোলার কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। এই ব্যাংক হিসাব পরিচালনাকারী হিসেবে মো. রফিকুল ইসলাম নামের এক ব্যক্তিকে দেখানো হয়, ​যাঁকে সাধারণ বিমার ডিজিএম পরিচয় দেওয়া হয়। আদতে রফিকুল ইসলাম নামে সাধারণ বিমায় কোনো ডিজিএম নেই। এই নামে কেউ প্রতিষ্ঠানে কর্মরত নেই, কেউ অবসরেও যা​ননি।

এসব বিষয় উল্লেখ করে দুর্নীতি দমন কমিশনের প্রধান কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ সিরাজুল হক মামলাটি দায়ের করেন। ঢাকা সমন্বিত জেলা কার্যালয়-১ কমিশনের পরিচালক প্রণব কুমার ভট্টাচার্য মামলার বিষয়টি সাংবাদিকদের জানান।

আবুল কাশেমের বিরুদ্ধে দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫(২) ধারা এবং মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ আইন, ২০১২ এর ৪(২) ধারায় মামলাটি দায়ের করা হয়।

মন্তব্য পড়ুন 0