default-image

চট্টগ্রামের রাউজান পৌর এলাকায় স্থানীয় এক ব্যবসায়ীর পায়ে গুলি করার অভিযোগ উঠেছে। স্থানীয় একটি মসজিদ পরিচালনা নিয়ে বিরোধের জেরে আজ বুধবার বিকেলে পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ডের পশ্চিম গহিরার শেখ ইব্রাহিম জামে মসজিদ মাঠে এই ঘটনা ঘটে। অভিযোগ উঠেছে, কাউন্সিলর আলমগীর আলী ওই ব্যবসায়ীর পায়ে গুলি করেছেন। তবে গুলি করার কথা অস্বীকার করেছেন তিনি।  

গুলিবিদ্ধ সাইফুদ্দিন খান (৪৯) রাউজান পৌর যুবলীগের জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি আবদুল্লাহ আল মামুনের বড় ভাই। তিনি সংযুক্ত আরব আমিরাত থাকতেন। পরে দেশে ফিরে মুরগির খামার ব্যবসায়ে যুক্ত হন। সাইফুদ্দিনকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। কাউন্সিলর আলমগীর আলী উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক।

সাইফুদ্দিনের পরিবারের সদস্য, স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শী এবং পুলিশের জ্যেষ্ঠ এক কর্মকর্তার সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, স্থানীয় শেখ ইব্রাহিম জামে মসজিদ পরিচালনা কমিটি নিয়ে এলাকার দুটি পক্ষের বিরোধ চলছিল। এর মধ্যে সম্প্রতি মসজিদে লাশ বহনের একটি খাটিয়া দান করেন স্থানীয় এক প্রবাসী। কিন্তু এর বিরোধিতা করে খাটিয়াটি ওই প্রবাসীর বাড়িতে ফেরত পাঠায় একটি পক্ষ। এ নিয়ে আজ বিকেলে দুপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এতে বেশ কয়েকজন আহত হন। তখন ব্যবসায়ী সাইফুদ্দিনের পায়ে গুলি করেন কাউন্সিলর আলমগীর আলী।

বিজ্ঞাপন

এই বিষয়ে বুধবার রাতে মুঠোফোনে সাইফুদ্দিনের ছোট ভাই রাউজান পৌর যুবলীগের জ্যেষ্ঠ সভাপতি আবদুল্লাহ আল মামুন প্রথম আলোকে বলেন, ‘আমার সামনেই কাউন্সিলর আলমগীর আলী পকেট থেকে পিস্তল বের করে আমার ভাইয়ের পায়ে গুলি করেন। এতে তার প্রচুর রক্ত ক্ষরণ হয়। তাঁর পায়ে অস্ত্রোপচার করা হয়েছে।’
ওই মসজিদের পেশ ইমাম মাওলানা জাহাঙ্গীর আলম বলেন, তিনি ঘটনাস্থলে ছিলেন না। লাশ পরিবহনের জন্য মসজিদে খাটিয়া দানকে কেন্দ্র করে কিছুদিন ধরেই এলাকার দুই পক্ষের বিরোধ চলছিল।

কাউন্সিলর আলমগীর আলী মুঠোফোনে প্রথম আলোকে বলেন, ‘বুধবার বিকেলে কিছু লোক মসজিদের উন্নয়নকাজে বাধা দেন। মসজিদের জন্য দান করা খাটিয়া ওই প্রবাসীর বাড়িতে ফেরত পাঠান তাঁরা। এ নিয়ে সংঘর্ষ হয়েছে। এতে এক ব্যক্তির আঘাত পেয়ে রক্তাক্ত হয়েছেন। আরও বেশ কয়েকজন আহত হন। তবে গোলাগুলির ঘটনা বানানো কথা। আমি কাউকে গুলি করিনি।’

চট্টগ্রাম মেডিকেল ক‌লেজ হাসপাতাল পু‌লিশ ফাঁড়ির সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) শীলাব্রত বড়ুয়া ব‌লেন, রাউজান থে‌কে পা‌য়ে গুলিবিদ্ধ এক ব‌্যক্তি‌কে হাসপাতালে আনা হয়েছে। তিনি চিকিৎসাধীন।

রাউজান ও রাঙ্গুনিয়া সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) আনোয়ার হোসেন শামীম প্রথম আলোকে বলেন, ‘ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। সাইফুদ্দিন নামের এক ব্যক্তিকে ওয়ার্ড কাউন্সিলর গুলি করেছেন বলে অভিযোগ করেছেন পরিবার। আমরা খোঁজ নিয়ে আইনগত ব্যবস্থা নিচ্ছি।’

অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন