default-image

গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলায় গতকাল মঙ্গলবার লিমু মনি লামিয়া (১০) নামের এক স্কুলছাত্রীর গলাকাটা লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে বাড়ির ভাড়াটে দম্পতিকে পুলিশ আটক করেছে।

নিহত লামিয়া গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার সূত্রাপুর উত্তর গজারিয়া এলাকার সাহেব আলীর মেয়ে এবং স্থানীয় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রী।

পুলিশ ও নিহত শিশুর পরিবার সূত্রে জানা গেছে, তিন মাস আগে বগুড়া সদর উপজেলার ফুলবাড়ি উত্তরপাড়া এলাকার সুমন মিয়া (২৮) ও তাঁর স্ত্রী মিলি বেগম (২১) ভাড়া নিয়ে সাহেব আলীর বাসায় বসবাস শুরু করেন।

কয়েক দিন আগে পাঁচ হাজার টাকা বাসাভাড়া বাকি নিয়ে ওই দম্পতির সঙ্গে বাড়ির মালিকের বাগ্‌বিতণ্ডাও হয়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে সুমন ও তাঁর স্ত্রী গতকাল বাড়ির পাশের পরিত্যক্ত ঘরে নিয়ে লামিয়াকে গলা কেটে হত্যা করে খালের পানিতে ফেলে দেন। পরিবারের লোকজন লামিয়ার নিখোঁজের বিষয়টি কালিয়াকৈর থানায় জানান।

বিজ্ঞাপন

লামিয়ার খোঁজে বাড়ির সদস্যরা যখন ব্যস্ত হয়ে পড়েন, তখন সুমন নানান পরামর্শ দিচ্ছিলেন। সুমনের কথাবার্তা ও আচরণ সন্দেহজনক মনে হলে স্থানীয় লোকজন তাঁকে আটক করে পুলিশে খবর দেন। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে গাজীপুরের শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠায়। পুলিশ সুমন ও তাঁর স্ত্রীকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করলে তাঁরা লামিয়াকে হত্যার বিষয়টি স্বীকার করেন।

কালিয়াকৈর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনোয়ার হোসেন চৌধুরী বলেন, স্বামী-স্ত্রীকে আরও জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। এ ঘটনায় মামলা হবে।

মন্তব্য পড়ুন 0