পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলার উত্তর হলতা গ্রাম থেকে গতকাল শনিবার এক গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ঘটনার পর থেকে নিহত গৃহবধূর স্বামী পলাতক।
ওই গৃহবধূর নাম রুমানা আক্তার (২০)। তাঁর বাড়ি বরগুনার বামনা উপজেলার রামনা গ্রামে। রুমানার মা রওশন আরা অভিযোগ, তাঁর মেয়েকে হত্যার পর শ্বশুরপক্ষের লোকজন সেটিকে আত্মহত্যা বলছেন।
পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, দুই বছর আগে উপজেলার উত্তর হলতা গ্রামের মো. সবুজের (২৫) সঙ্গে রুমানার বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে বিভিন্ন বিষয়ে তাঁদের মধ্যে দাম্পত্য কলহ ছিল। গতকাল সকালে প্রতিবেশী কয়েকজন ওই বাড়িতে গেলে ঘরের আড়ার সঙ্গে গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় রুমানাকে ঝুলতে দেখেন। এরপর তাঁরা পুলিশে খবর দেন।
ঘটনার পর থেকে সবুজ ও তাঁর পরিবারের সদস্যরা পলাতক।
মঠবাড়িয়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) এ কে এম মিজানুল হক বলেন, এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ পিরোজপুর সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হবে।

বিজ্ঞাপন
অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন