default-image

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলায় যুবদলের কর্মিসভায় ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের দুই দফা হামলায় উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমিন দুলালসহ অর্ধশত নেতা-কর্মী আহত হয়েছেন। আজ মঙ্গলবার দুপুর ১২টা থেকে দেড়টা পর্যন্ত উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদকের বাসভবনের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আবু বকর সিদ্দিক বলেন, সকালে শহরের উপজেলা পরিষদ সড়কে অবস্থিত রুহুল আমিন দুলালের বাসভবন-সংলগ্ন মাঠে যুবদলের কর্মিসভা চলছিল। তাঁর দাবি, দুপুর ১২টার দিকে উপজেলা পরিষদ ফটকের সামনে যুবদলের কয়েকজন কর্মী দাঁড়িয়ে ছিলেন। এ সময় ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা এসে তাঁদের ওপর হামলা করেন। ছাত্রলীগ ও যুবলীগের নেতা-কর্মীদের হামলায় উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমিন দুলাল, জেলা বিএনপির বিশেষ সম্পাদক কে এম হুমায়ুন কবির, উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক জসিম উদ্দিন ফরাজী, উপজেলা যুবদলের আহ্বায়ক মাসুম বিল্লাহসহ যুবদলের অন্তত অর্ধশত নেতা-কর্মী আহত হন। দুপুর সোয়া একটার দিকে ছাত্রলীগ ও যুবলীগের নেতা-কর্মীরা রুহুল আমিনের বাসভবনে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করেন। একপর্যায়ে তাঁর বাসভবনের সামনে অবস্থান নিয়ে স্লোগান দিতে থাকেন।

বিজ্ঞাপন

এ বিষয়ে রুহুল আমিন দুলাল বলেন, তাঁদের শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে ছাত্রলীগ ও যুবলীগের নেতা-কর্মীরা হামলা করেন। আহত নেতা-কর্মীদের হাসপাতালে নিতেও বাধা দেওয়া হয় বলে তাঁর অভিযোগ। পরে পুলিশের সহায়তায় কয়েকজনকে হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে।

মঠবাড়িয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মসিউর রহমান বলেন, ‘যুবদলের নেতা-কর্মীরা আমাদের নামে উসকানিমূলক কথা বলায় দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদকের বাড়িতে আমাদের লোকজন কোনো হামলা করেননি।’

পিরোজপুরের পুলিশ সুপার হায়াতুল ইসলাম খান বলেন, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে মঠবাড়িয়ায় অতিরিক্ত পুলিশ পাঠানো হয়েছে।

অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন