স্ত্রীর সঙ্গে বন্ধুর পরকীয়া আছে—এমন সন্দেহে এক মন্ত্রীর গানম্যান পুলিশের সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) কিশোর কুমার ১৬ এপ্রিল তাঁর দুই বন্ধুকে গুলি করেন। একজন ওই দিনই মারা যান। চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে আরেক বন্ধুর মৃত্যু হয়।

নিহত ব্যক্তির নাম মো. মহিম উদ্দিন (৩২)। তিনি সাভারের এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল রাত দুইটায় মারা যান। তাঁর বাড়ি গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার সীমান্তবর্তী টাঙ্গাইলের মির্জাপুরের আজগানা গ্রামে। ঘটনার দিন নিহত হন একই গ্রামের মো. শহিদ (৩০)।

মন্ত্রীর গানম্যান হলেন গাজীপুর পুলিশের বিশেষ শাখার (এসবি) এএসআই কিশোর কুমার (৩৫)। তাঁর বাড়ি কালিয়াকৈর উপজেলার কুতুবদিয়া গ্রামে। পুলিশ তাঁকে ঘটনার এক দিন পর আশুলিয়ার শিমুলতলী এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে। ওই সময় তাঁর কাছ থেকে একটি পিস্তল ও ৬টি গুলি উদ্ধার করে।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, তাঁরা তিনজন পরস্পরের বন্ধু। প্রায়ই তাঁরা একসঙ্গে আড্ডা দিতেন। স্ত্রীর সঙ্গে কিশোরের দীর্ঘদিন ধরে দাম্পত্য কলহ চলছিল। সম্প্রতি ওই কলহের জেরে কিশোরের স্ত্রী ঢাকার বাসা থেকে বাবার বাড়ি চলে যান। কিশোরের ধারণা, তাঁর স্ত্রীর সঙ্গে মহিমের পরকীয়া আছে। এ জন্য মহিমকে হত্যার উদ্দেশ্যে ১৬ এপ্রিল ডেকে আনেন কিশোর। মাহিম বন্ধু শহিদকে নিয়ে কিশোরের উল্লিখিত স্থানে যান। রাত পৌনে ১০টার দিকে কিশোর মোটরসাইকেলে করে গিয়ে পিস্তল দিয়ে এলোপাতাড়ি গুলি শুরু করেন।

কালিয়াকৈর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আলমগীর হোসেন মজুমদার এ খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, মহিম মৃত্যুর আগে ঘটনার বিস্তারিত পুলিশকে জানিয়েছিলেন।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0