default-image

ধারালো দা দিয়ে মাকে (৪৫) কুপিয়ে গুরুতর জখম করে পাশেই দাঁড়িয়ে ছিল ১৫ বছরের কিশোর ছেলে। আহত মাকে হাসপাতালে নেওয়ার পথে আজ বুধবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে তিনি মারা যান। বেলা ১১টার দিকে গাজীপুরের শ্রীপুরে মাকে কোপানোর ঘটনা ঘটে।

কিশোরটি স্থানীয় একটি উচ্চবিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী। স্বজনের বরাত দিয়ে পুলিশ বলছে, দুই বছর ধরে কিশোরের মানসিক সমস্যা আছে।

ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে শ্রীপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান বলেন, আজ ভোরে মায়ের সঙ্গে ধান সেদ্ধ করেছে ছেলে। তখনো সে স্বাভাবিক ছিল। সকালে তার বাবা গাছ থেকে ডাব পেড়ে রেখে বাড়ির বাইরে চলে যান। সেই ডাব কিশোরটি নিজে কেটে খেয়েছে। বেলা ১১টার দিকে হঠাৎ ডাব কাটার দা দিয়ে মাকে এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকে সে। কোপানোর পর সে মায়ের পাশেই দাঁড়িয়ে ছিল। আহত অবস্থায় কিশোরের মাকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে তিনি মারা যান। কিশোরকে আটক করে স্থানীয় ব্যক্তিরা পুলিশে খবর দেন। পুলিশ কিশোরকে থানায় নিয়ে যায়। তার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন