জয়পুরহাটের আক্কেলপুর উপজেলার রুকন্দীপুর ইউনিয়নের জামালগঞ্জ বাজারে গতকাল শুক্রবার সকালে চোর সন্দেহে এক ব্যক্তিকে পেটানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে। পরে পুলিশ মুমূর্ষু অবস্থায় তাঁকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।
নির্যাতনের শিকার হওয়া ওই ব্যক্তির নাম রহমত আলী (৪২)। তাঁর বাড়ি নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলা সদরের রসুলপুর গ্রামে।
স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগে চিকিৎসাধীন রহমত আলী জানান, আক্কেলপুরে থেকে তিনি পুরোনো কাপড় ফেরি করে বিক্রি করেন। বাজারের দোকানদার আহাম্মেদ আলীর কাছে তিনি পাঁচ টাকা পেতেন। গতকাল সকালে দোকানে গিয়ে টাকাটা চাইলে তিনি খ্যাপে ওঠেন। একপর্যায়ে দোকানের লোকজন তাঁকে মারধর শুরু করেন। পরে তাঁকে আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে নিয়ে হাত-পা বেঁধে পেটানো জয়। সেখান থেকে দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করলে যারা তাঁকে মারধর করছিল তারা চোর চোর বলে চিৎকার দেয়। এ সময় রাস্তার লোকজন আবার তাঁকে ধরে মারধর করে।
গুরুতর আহত রহমত আলী বলেন, ‘আমি চোর নই বলে সবার কাছে অনুনয়-বিনয় করেছিলাম। কেউই আমার কথা শুনেনি।’ তিনি এ ঘটনায় জড়িত ব্যক্তিদের শাস্তির দাবি করেন।
হাসপাতালে রোগীর সঙ্গে থাকা উপপরিদর্শক (এসআই) আরিফ জানান, গতকাল সকাল সাড়ে ১০টার দিকে জামালগঞ্জ বাজারের আহাম্মেদ আলীর মুরগির খাদ্যের দোকানে ঢুকে ক্যাশ থেকে টাকা চুরির অভিযোগে ওই ব্যক্তিকে লোকজন পেটায়। পরে খবর পেয়ে একটি রাজনৈতিক দলের কার্যালয় থেকে তাঁকে উদ্ধার করা হয়।
স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক সুদীপ্ত কুণ্ডু জানান, পুলিশ মুমূর্ষু অবস্থায় লোকটিকে নিয়ে আসে। রোগীর অবস্থা সংকটাপন্ন হওয়ায় তাঁকে জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।
বাজারের ব্যবসায়ী আহাম্মেদ আলী বলেন, ‘আমি তাঁকে কখনো দেখিনি। টাকা পাওয়া তো দূরের কথা।’ তিনি আরও বলেন, ‘ওই লোক আমার দোকানের ক্যাশ থেকে এক লাখ টাকা চুরি করে পালানোর চেষ্টা করছিল। পরে লোকজন তাকে ধরে গণপিটুনি দেয়।’
ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন জানান, ঘটনাটি তাঁর জানা নেই।

বিজ্ঞাপন
অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন