সৌদি আরব থেকে এক ব্যক্তি অসুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন এমন মিথ্যা তথ্য প্রচারের দায়ে এক নারীকে ২০০ টাকা অর্থদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে মানিকগঞ্জের ঘিওর উপজেলায় ভ্রাম্যমাণ আদালতটি পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আইরিন আক্তার।

অর্থদণ্ডপ্রাপ্ত ওই নারীর নাম মায়া রানী বসাক (৫০)। তাঁর বাড়ি উপজেলার বানিয়াজুরী ইউনিয়নের তরা গ্রামে।

উপজেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, কয়েক দিন ধরে ওই নারী এলাকার লোকজনের কাছে বলে আসছেন যে, তাঁর গ্রামে সৌদি আরব থেকে এক ব্যক্তি অসুস্থ হয়ে বাড়িতে এসেছেন। ওই ব্যক্তি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হতে পারেন। এরপর এই তথ্য আশপাশের বিভিন্ন এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে। গতকাল সন্ধ্যায় স্থানীয় ব্যক্তিরা বিষয়টি ইউএনও আইরিন আক্তারকে জানান।

এরপর রাত সাড়ে ১১ টার দিকে উপজেলা প্রশাসন ওই এলাকায় অভিযান চালায়। ইউএনও আইরিন আক্তার, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা সৌমেন চৌধুরী ও ঘিওর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মহব্বত খান অভিযানে অংশ নেন। পরে সেখানে গিয়ে তাঁরা জানতে পারেন, সৌদি আরব থেকে ওই ব্যক্তি দেশেই আসেননি। মিথ্যা তথ্য প্রচারের দায়ে তখন ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে মায়া রানীকে ২০০ টাকা অর্থদণ্ড দেওয়া হয়।

ইউএনও আইরিন আক্তার বলেন, মিথ্যা তথ্য দিয়ে ওই নারী জনমনে আতঙ্ক সৃষ্টি করেছেন। এ কারণে দণ্ডবিধির ২৯০ ধারার অপরাধে ওই নারীকে অর্থদণ্ড দেওয়া হয়। মিথ্যা তথ্য বা গুজব না ছড়াতে সকলকে অনুরোধ জানিয়ে তিনি বলেন, কেউ মিথ্যা তথ্য প্রচার বা গুজব ছড়ালে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0